news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: আধুনিক বিজ্ঞানের যুগে সম্ভবত করোনাই প্রথম রোগ যার সামনে সকল গবেষণা ব্যর্থ হচ্ছে, সকল আবিষ্কার ভুল প্রমাণিত হচ্ছে। করোনাকে মারার ওষুধ কী তা এখনও কারার পক্ষে জানা সম্ভব হচ্ছে না। এর সবথেকে বড় কারণ হল- গত কয়েক মাসে নিজের চরিত্র কয়েকবার পরিবর্তন করেছে এই ভাইরাস। এবং এখনও করে চলেছে। সেই কারণে এর ভ্যাকসিন খুঁজে পেতে হয়রান হচ্ছেন গবেষকরা।

উদাহরণস্বরূপ আমেরিকার কথা বলা যেতে পারে। সেখানে টাইপ-এ ও টাইপ-বি, দু’ধরনের সংক্রমণ দেখতে পাওয়া গিয়েছে। সেই কারণে আমেরিকায় মৃত্যুর সংখ্যাও সর্বাধিক। সর্বমোট ১৭টি দেশে ভারতীয়দের শরীরে সংক্রমণ পাওয়া গিয়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, কোভিড ১৯-র ভাইরাস পাঁচবার নিজের চরিত্র পরিবর্তন করেছে। এখনও পর্যন্ত এই ভাইরাসের উপসর্গ হিসেবে জ্বর, শ্বাসকষ্ট ও সর্দি-কাশিই সামিল ছিল। তবে সময়ের সঙ্গে ভাইরাসটি যতবার নিজের চরিত্র বদল করতে করছে, ততবার এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার নতুন নতুন উপসর্গ দেখা যাচ্ছে। আমেরিকার হেলথ প্রোটেকশন এজেন্সি তথা সেন্টার অব ডিজিজ কন্ট্রোলের তরফে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ছটি নতুন উপসর্গের কথা প্রকাশ্যে আনা হয়েছে।

নতুন এ ছয়টি লক্ষণ হল- অত্যাধিক শীত অনুভব হওয়া, শীত অনুভব হওয়ার পাশাপাশি কাঁপুনি আসা। এছাড়াও রয়েছে মাথাব্যথা, মাংসপেশীতে ব্যথা, গলা খুসখুস করা এবং স্বাদ বা গন্ধের অনুভব হারিয়ে যাওয়া। এই ছ’টি লক্ষণ প্রকাশ্যে আসতেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার উপসর্গ মোট নয়টি হয়ে গেল। এগুলির মধ্যে যে কোনও একটি উপসর্গ শরীরে থাকলে করোনার সংক্রমণ হলেও হয়ে থাকতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here