ডেস্ক: ‘ভারতের ইতিহাসে বীরেরা শত্রু দমন করতে ছোট থেকেই নিজেদের হাতে অস্ত্র তুলে নিয়েছিলেন।’ রামনবমীর শোভাযাত্রায় কিশোরদের হাতে অস্ত্র তুলে দেওয়াকে সমর্থন করে এমনটাই জানালেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তার কথায়, ‘ভারতের ইতিহাসে বালক বিদ্রোহের কথা বলা আছে। লব কুশের ইতিহাসও আমরা জানি। মহারাজা ভরতকে চেনা না কে? ওই রকম বীর পুরুষ চাই আমরা। ওদের দেখে আমরা ভয় পাই না, বরং আনন্দ পাই। ছোট থেকেই শ্রীরাম ও কৃষ্ণ তির ধনুক নিয়ে খেলেছেন। সেহেতু এটা আমাদের পরম্পরা। এসব নিয়ে প্রশ্ন ওঠার কোনও মানেই হয় না।

শুধু তাই নয়, বর্তমান পরিস্থিতির উপর নিজের ক্ষোভ উগরে দিয়ে তিনি বলেন, ‘হিন্দু সমাজকে অস্ত্রহীন করে দুর্বল করা হয়েছে। তাই দেশভাগ হয়েছে। মা-বোনেদের সম্মান নষ্ট হচ্ছে। সরকার যখন মানুষকে সুরক্ষা দিতে পারে না, সম্মান রক্ষা করতে পারে না। তখনই সমাজের লোক হাতিয়ার ধরে নেয়। এটা সরকারের বিফলতা। সরকার যদি নিজের কাজ ঠিক করে তাহলে এই ধরনের ঘটনা ঘটবে না।’

রামভক্তি নিয়ে নাম না করে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘উনি কোন রামের কথা বলছেন আমি জানি না। সেই জন্যই বলছিলাম যারা থ্রি এক্স রামের ভক্ত তারা এই রামকে চিনবে না। ছোট থেকেই রামের হাতে অস্ত্র রয়েছে। হিন্দু দেবদেবী সবার হাতেই অস্ত্র রয়েছে, আসলে উনিতো এতদিন নামাজ পড়তেন, তাই ব্যাপারটা বুঝতে পারছেন না।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here