ডেস্ক: আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে গদিছাড়া করতে একছাতার নিচে একত্রিত হচ্ছে বিরোধী শক্তি। আর সেই শক্তিকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সম্প্রতি তৃতীয় ফ্রন্ট গড়ার লক্ষ্যে, কয়েকধাপ এগিয়েও গিয়েছেন তিনি। নবান্নে সাক্ষাৎ করেছেন চন্দ্রশেখর রাওয়ের সঙ্গে। এবার শরদ পাওয়ারের ডাকা বৈঠকে যোগ দিতে দিল্লিতেও গিয়েছেন তিনি। তৃতীয় ফন্টের এই সম্ভাবনাময় উত্থানকে বিন্দুমাত্র পাত্তা না দিয়েই এই বৈঠককে তীব্র কটাক্ষ করলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।

বিজেপির এক সাংগঠনিক বৈঠকে যোগ দিতে মঙ্গলবার সকালে শিলিগুড়ি যান মুকুলবাবু। সেখানেই মুখ্যমন্ত্রীর তৃতীয় ফ্রন্ট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘তৃতীয় ফ্রন্ট একটি মরীচিকা মাত্র। এর কোনও বাস্তব ভিত্তি নেই। কোনওদিন বিকল্প তৃতীয় ফ্রন্ট গড়ে তুলতে পারবেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বহুবার চেষ্টা হয়েছে, আর মরীচিকার মতোই তা উবে গিয়েছে। এবারও তা হবে।’ শুধু তৃতীয় ফ্রন্ট নয়, রাজ্যে রামনবমী প্রসঙ্গেও তৃণমূলকে একহাত নিতে ছাড়েননি তিনি। তাঁর কথায়, ‘রামনবমী উৎসব ও অস্ত্র মিছিল এই প্রথম হচ্ছে না। এটা ভারতের পরম্পরা। এটা নিয়ে অহেতুক পারদ চড়াচ্ছিল তৃণমূল। এখন ওরাই অস্ত্র নিয়ে মিছিল করেছে।’

উল্লেখ্য, এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনের সম্পুর্ন দায়িত্ব রয়েছে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের কাঁধে। পঞ্চায়েত নির্বাচনে কোথাও কোনও ত্রুটি না রাখতে এলাকায় এলাকায় প্রচার করার জন্য, কেন্দ্রের তরফে হেলিকপ্টারও দেওয়া হচ্ছে বিজেপি নেতাদের। পঞ্চায়েত নির্বাচনে সব জায়গায় প্রার্থী দিতে এবং নিজেদের দল ভারী করতে তৃণমূল ভাঙাই এখন মূল লক্ষ্য বিজেপির। সম্প্রতি তৃণমূল ছেড়ে শিলিগুড়িতে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন শিখা চট্টোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, তাঁকে দলে ফেরাতে মরিয়া তৃণমূল দায়িত্ব দিয়েছেন রঞ্জন শিলশর্মাকে। এ প্রসঙ্গেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি মুকুল রায়। তাঁর কথায়, ‘শিখা দেবী একজন পরিণত রাজনৈতিক কর্মী। দেখুন রঞ্জনবাবুই না কোনও দিন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেয়।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here