kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জীব জগতের সমস্ত সৃষ্টির মূলেই আছে কর্ষণ। শিল্পীর কথায় সেই কর্ষণ মানে প্রেম। একে অপরের প্রতি টান। সেই কর্ষণের অন্তরনিহিত অর্থ এবার ফুটে উঠবে হাওড়ার কামারডাঙা শীতলাতলা বারোয়ারির পুজোমন্ডপে। প্রতি বছরই এই ক্লাবের দুর্গাপুজায় থাকে অভিনবত্ব। এবারেও তার ব্যাতিক্রম নয়।

এই বছর শীতলাতলা বারোয়ারির পুজোমন্ডপ ও প্রতিমা নির্মাণ করছেন আর্ট কলেজের ছাত্র শিল্পী হরিসাধন দাস। তাঁর কথায়, কর্ষণ ছাড়া জীবের সৃষ্টি হয় না। পুরুষ নারীর মিলনে যে কর্ষণ কাজ করে তার দ্বারাই নতুন প্রাণের সৃষ্টি হয়। তাই মন্ডপের ঢোকার মুখে থাকবে একটি বড় ডিম্বাকৃতি গোলক। যেটি মাতৃজঠোর। এখান দিয়েই দর্শনার্থীরা মন্ডপে ঢুকবেন। শিল্পীর কথায়, যেহেতু মাতৃজঠোরে জীবের সৃষ্টি তাই দর্শনার্থীরা সেই গোলকের ভিতর দিয়ে মন্ডপে প্রবেশ করবেন। প্রতিমাও নির্মাণ হচ্ছে থিমের সঙ্গে সামাঞ্জস্য রেখে। প্রতিমার পিছনে থাকবে মানুষের শরীরের অঙ্গের চিত্রনাট্য। পুজো উদ্যোক্তা সিদ্ধার্থ কাঁড়ার জানান, তাঁরা কর্ষণের ইতিবাচক ও নেতিবাচক দুইটি দিক তুলে ধরছেন। তিনি বলেন, মন্ডপের ভিতরে একটি কৃত্রিম বড় কাঁকড়া বিছা থাকবে। যার একদিকে থাকবে শরীরের অর্ধেক অংশ আর বাকি অংশটি খাঁচা দিয়ে ঢাকা। অর্থাৎ মন্দ মনোভাবের জন্য সমাজ অবক্ষয়ের দিকে যাচ্ছে। নারীর শরীরের প্রতি লোলুভ সমাজের টান দীর্ঘদিনের। তাই সমাজে নারী নির্যাতন, ধর্ষণ হচ্ছে। তাই তাঁরা এই থিমের মাধ্যমে সমাজকে বার্তা দিতে চান হিংসা ভুলে একে অপরকে ভালবাসো।

kolkata bengali news

পাশাপাশি পুজো মন্ডপটি নির্মাণ হচ্ছে দক্ষিণ ভারতের একটি মন্দিরের আদলে। হাওড়ার কামারডাঙা শীতলাতলা বারোয়ারির পুজোর এবছর পঁয়ত্রিশ তম বর্ষ। বাজেট প্রায় বারো লক্ষ টাকা। প্রতিবছর এই পুজো দর্শনার্থীদের নজর কাড়ে। হাওড়ার সেরা পুজোর তালিকাতেও অনেকবার নাম উঠেছে এই পুজোর। এবছরও সেই সাফল্য পেতে আশাবাদী ক্লাব সদস্যরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here