নিজস্ব প্রতিবেদক, জলপাইগুড়ি: বনদফতরের প্রচেষ্টায় উদ্ধার হল প্রায় ৪ লক্ষ চোরাই কাঠ। বৃহস্পতিবার রাতে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে জলপাইগুড়ির বেলাকোবা বন দফতরের রেঞ্জার সঞ্জয় দত্ত গোটা রাত ব্যাপী একটি অভিযান চালান। এরপরই শুক্রবার ওই চোরাই কাঠ উদ্ধার হয়। মোট তিনজনকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানা গিয়েছে। ধৃতরা হল, সুকুমার ভৌমিক, দীপক রায় প্রধান এবং শ্যাম সরকার। তারা বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, শুক্রবার ধৃতরা গাড়িতে করে অবৈধ কাঠ নিয়ে বেলাকোবার ওপর দিয়ে যাচ্ছিল। সেইসময় বনদফতরের কর্মীরা চোরাই কাঠ পাচারকারীদের কাঠ নিয়ে যেতে দেখে ফেলে। বাধা দিতে গেলে অভিযুক্তরা তাদের ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এরপর গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযান চালানো হলে এদিন ওই অবৈধ কাঠ উদ্ধার করা সম্ভব হয়। অভিযুক্ত দীপক রায় প্রধান বেলাকোবা হাসপাতালে এবং শ্যাম সরকার জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। বাগডোগরা, শিবমন্দির, শিরিষতলা, মাষকেলবাড়ি মোট চারটি জায়গায় অভিযান চালিয়ে এই বিপুল পরিমান অবৈধ কাঠ উদ্ধার হয়েছে বলে খবর। বেলাকোবা বনদফতরের রেঞ্জার সঞ্জয় দত্ত জানিয়েছেন, মোট চার লক্ষ টাকার কাঠ উদ্ধার হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here