ডেস্ক: বুন্দেলশহরে ইন্সপেক্টর সুবোধ কুমার সিং এর মৃত্যুর তিন দিন পর অবশেষে তাঁর পরিবারের সঙ্গে দেখা করলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথ। মৃত পুলিশ অফিসার সুবোধ কুমারের স্ত্রী তাঁর দুই ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর লখনউ এর বাসভবনে দেখা করতে যান। তবে এই ঘটনার পর মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের দায়বদ্ধতা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। ঘটনা ঘটার তিন দিন পর বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনা শুরু হলে একপ্রকার বাধ্য হয়েই যোগী সুবোধ কুমারের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন। তবে যোগী এই পুলিশ মৃত্যুর ঘটনায় যে একেবারেই চিন্তিত নন তার প্রমাণ মেলে মুখ্যমন্ত্রীর বুধবারের ঘোষণার পর। তিনি গতকাল প্রশাসনিক সভায় গোহত্যাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেন।

মৃত ইন্সপেক্টরের স্ত্রী জানান, উত্তরপ্রদেশের প্রশাসন হত্যাকারীদের উপর নমনীয় ভাব প্রদর্শন করছে। যা একেবারেই কাঙ্খিত নয়। উল্লেখ্য, ঘটনার দিন গরুর হাড় পড়ে থাকাকে কেন্দ্র করে উত্তেজিত বুন্দেলশহরের জনতাকে নিয়ন্ত্রণ করতে ইন্সপেক্টর সুবোধ কুমার সিং-কে নিয়োগ করা হয়েছিল। কিন্তু সেখানে তিনি উন্মত্ত জনতার ক্ষোভের মুখে পড়েন এবং তাঁদের ছুঁড়তে থাকা ইট ও গুলিতে মৃত্যু হয় কর্তব্যরত সুবোধ কুমারের। অন্যদিকে এই ঘটনার মূল অভিযুক্ত বজরং দলের যোগেশ রাজ একটি ভিডিওবার্তায় নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, প্রথমে গ্রামের পাশে জঙ্গলের কাছে গরুর হাড় উদ্ধার হয়। তারপর বন্ধু বান্ধবদের নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় যোগেশ। পরিস্থিতি শান্ত হলে স্থানীয় থানায় অভিযোগ জানাতে যায় যান তিনি। থানায় থাকাকালীন অবস্থাতেই দ্বিতীয়বার ফের অশান্ত হয়ে ওঠে এলাকা। তখনই পুলিশ অফিসার সুবোধ কুমার সিংয়ের মৃত্যু হয়।যোগেশের অভিযোগ তাকে চক্রান্তের শিকার হতে হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here