রিচার্জেবল ব্য়াটারি, কালজয়ী আবিস্কারে নোবেল পেলেন তিন রসায়নবিজ্ঞানী

0
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ২০১৯-এ রসায়নে নোবেল পুরস্কার পাচ্ছেন জন বি গুডএনাফ, এম স্ট্যানলি হুইটিংহ্যাম ও আকিরা ইয়োশিনো৷ সেই ১৯৭০ সালেই রিচার্জেবল লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি নিয়ে গবেষণা শুরু করেছিলেন পাঁচ বিজ্ঞানী, জন বি গুডনাফ, এম স্ট্যানলি হইট্টিংহ্যাম, রবার্ট হাগিনস, র‍্যাসিড ইয়াজামি এবং আকিরা ইয়োশিনো৷ তবে এই গবেষণার মূল পথ প্রদর্শক ছিলেন গুডনাফ, হইট্টিংহ্যাম ও ইয়োশিনো৷

ডিজিটাল প্রযুক্তির ইতিহাসে বিবর্তনের নতুন পথ দেখিয়েছে লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি বা এলআইবি। মোবাইল, ল্যাপটপ, বৈদ্যুতিন যন্ত্রপাতি থেকে বৈদ্যুতিন গাড়ি রিচার্জেবল এই ব্যাটারির প্রয়োগ সর্বত্র। অ্যারোস্পেস ইঞ্জিনিয়ারিং থেকে প্রতিরক্ষা বিষয়ক গবেষণা, নতুন দিশা দেখিয়েছে এই এলআইবি৷ বুধবার নোবেল কমিটির তরফে ঘোষণা করা হয় যে এই তিন রসায়নবিজ্ঞানী পেতে চলেছেন নোবেল৷ প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন পর রসায়নে রসায়নবিদরাই নোবেল পেতে চলেছেন৷ কারণ গত কয়েক দশক ধরেই ক্যানসার জীববিজ্ঞানী ও ডিএনএ জীববিজ্ঞানীরাই পাচ্ছিলেন রসায়নে নোবেল৷ বছর সাতাত্তরের এম স্ট্যানলি হুইটিংহ্যাম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিংহ্যামটন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। একাত্তরের আকিরা ইয়োসিনো জাপানের নাগোইয়ে মেইজো বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ও সাতানব্বই বছরের জন বি গুডনাফ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ইউনিভার্সিটি অফ টেক্সাসের অধ্যাপক৷

তারা গবেষণা শুরু করেছিলেন ১৯৭০ সালে৷ ঠিক তার দশবছর পর ১৯৮০ সালে লিথিয়ান আয়ন ব্যাটারি৷ নানা প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে প্রথম ১৯৯১ সালে সোনি ও এক জাপানি কেমিক্যাল কোম্পানি এই ব্যাটারির ব্যবহার শুরু করে৷ এরপরই ধীরে ধীরে লিথিয়াম ব্যাটারির গ্রহনযোগ্যতা বাড়তে থাকে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here