মহানগর ওয়েবডেস্ক: কিছুদিন আগেই মানুষ ও বন্যপ্রাণীর সংঘাতে প্রাণ হারিয়েছিল একটি গর্ভবতী হাতি। এবার সেই কেরলেই ফের মানুষ ও বন্যপ্রাণীর সংঘাত। তবে এবার বাঘের হানায় মৃত্যু হল বছর তেইশের এক তরুণের। ঘটনাটি বুধবার ওয়েনাদ জেলার পাথিরি অভয়ারণ্যে ঘটেছে। মৃত তরুণের নাম শিবকুমার।

সূত্রের খবর, পেশায় অটোচালক শিবকুমার মঙ্গলবার বাড়ির কাছেই জঙ্গলে কাঠ কুড়োতে গিয়েছিলেন। কিন্তু বিকাল গড়িয়ে সন্ধ্যে হয়ে যাওয়ার পরেও তিনি না ফেরার সন্দেহ দানা বাঁধে তার পরিবারের মনে। খবর দেওয়া হয় স্থানীয় বনবিভাগে। এরপরেই গ্রামবাসী, বনকর্মী ও পুলিশ মিলে জঙ্গলে যান শিবকুমারের খোঁজে।

বাড়ি থেকে মাত্র ৪০০ মিটার দূরে তরুণের জুতো, মানিব্যাগ উদ্ধার হয়। সেখানে রক্তের ছাপও মেলে। পাশাপাশি, মাটিতে কিছু টেনে নিয়ে যাওয়ার দাগও ছিল। সেই দাগ লক্ষ্য করেই আরও ৭৫০ মিটার দূরে শিবকুমারের দেহাংশ মেলে। বনকর্মীরা দাবি করেছেন এটি বাঘেরই আক্রমণ। শিবকুমারের মাথা বাদে প্রায় গোটা শরীরই ভক্ষণ করে নেয় নরখাদক সেই বাঘ।

লোকালয়ের অত কাছে বাঘ চলে আসার পরই নড়েচড়ে বসে বনবিভাগ। ইতিমধ্যেই সেখানে ৯টি গোপন ক্যামেরা বসানো হয়েছে। পাতা হয়েছে একাধিক খাঁচা। এছাড়া ওই অঞ্চলে জঙ্গল ও গ্রাম সীমান্তে বনদফতরের তরফ থেকে টহল দেওয়া হচ্ছে। মৃতের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের গণনা অনুযায়ী কেরলের মোট ১৯০টি বাঘের মধ্যে ওয়েনাদেই ৮০টি বাঘ থাকে। গত ডিসেম্বরেই ওই অঞ্চলে এক আদিবাসীকেও বাঘে টেনে নিয়ে গিয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here