নিজস্ব প্রতিবেদক, আলিপুরদুয়ার: দক্ষিণে যদি আসর মাতিয়ে রাখে ‘অনুব্রতের নকুলদানা’, তবে উত্তরের শোরগোল তুলতে আসরে নামছে ‘মোহনের চা’। গতবারের গুড় বাতাসার স্থান নিয়েছে এবার গোল সাদা নকুলদানা। দক্ষিণ রীতিমত জমজমাট এবারের নকুলদানা নিয়ে। আর তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে উত্তরের ভোট রণাঙ্গনেও ‘চা’ এর আমদানি করল তৃণমূল কংগ্রেস। ‘বিরোধীদের জন্য আমরা ফ্লাক্সে করে চা নিয়ে বের হব। বিরোধীদের চা খাওয়াবো, সঙ্গে থাকবে ভালোবাসা।’ বুধবার আলিপুরদুয়ারে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী দশরথ তিরকের মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েই এই কটাক্ষ ঘেরা সৌজন্যের বার্তা দিয়েছেন আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূল সভাপতি মোহন শর্মা। আর শুধু বিরোধীদের জন্য নয়, চা’এর আপ্যায়ন থাকবে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জন্যও, জানিয়ে দিয়েছে তৃণমূল।

বুধবার আলিপুরদুয়ার বক্সা ফরেস্ট রোড ধরে ঢাক ঢোল পিটিয়ে কর্মী সমর্থকদের মিছিল নিয়ে ডুয়ার্স কন্যায় মনোনয়ন পত্র পেশ করেন দশরথ তিরকে। নেতৃত্বে ছিলেন জেলা সভাপতি মোহন শর্মা। মনোনয়ন শেষে, ‘আমরা জিতে আছি, আড়াই লক্ষের ভোটের ব্যবধানে এবার জিতব,’ ইত্যাদি বক্তব্য দিয়ে বিরোধীদের একপ্রকার উড়িয়ে দিয়েছেন মোহনবাবু। পাশাপাশি তার মন্তব্য, ‘ডুয়ার্স সৌজন্য প্রকাশ করতে জানে। বিরোধীদের আমরা চা খাওয়াবো। পথে ঘাটে যেখানেই দেখব, ফ্লাক্সে চা রাখা থাকবে, চা খাওয়াবো। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরাও মানুষ। আমরা চায়ের দেশের লোক। তাদেরও আমরা চা খাওয়াবো।’ অপরদিকে, প্রচারে বিরোধীদের কয়েক যোজন পিছনে ফেলে ভোট প্রচার অব্যাহত তৃণমূলের। কিছুদিনের মধ্যে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জিও ভোট প্রচারে আসছেন আলিপুরদুয়ারে। দুটো জনসভা করবেন তিনি, জানিয়েছে জেলা তৃণমূল। এই রকম অবস্থায় বিরোধী শিবির এখনও কার্যত ছন্নছাড়া। বামেরা তবু প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে দিয়েছে, এমনকি সবার আগে মনোনয়ন দাখিলও করে দিয়েছে। কিন্তু বিজেপি এখনও যেমন প্রার্থী তালিকা ঘোষণাও করে উঠতে পারেনি তেমনি কংগ্রেস তার প্রার্থীর নাম ঘোষণা করলেও তার দেখা মেলাই ভার।

 

উত্তরের প্রথম দফা লোকসভা ভোটের প্রস্তুতিতে এখন যুদ্ধকালীন তৎপরতা চলছে আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহারে। এর মাঝেই মিছিল করে আলিপুরদুয়ার কেন্দ্রের বামপ্রার্থী ডুয়ার্স কন্যায় মনোনয়নপত্র পেশ করে দিয়েছেন আরএসপি’র মিলি ওরাঁও। দলীয় কার্য্যালয় থেকে মিছিল করে বক্সা ফরেস্ট রোড ধরে মিলি ওরাঁওকে নিয়ে ডুয়ার্স কন্যায় গিয়ে মনোনয়ন দাখিল করেছে জেলার বামফ্রন্টের জেলা নেতৃত্ব। আরএসপি’র জেলা সম্পাদক সুনীল বণিক জানিয়েছেন, আমাদের প্রার্থী মিলি ওরাঁও ইতিমধ্যেই মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। আমরা জোর কদমে প্রচার শুরুও করেছি। মানুষ আমাদের সঙ্গেই আছেন।’

এসবের মাঝে এই মুহূর্তে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে বিজেপি। তাদের প্রার্থী তালিকা এখনও রয়েছে দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সিলমোহরের অপেক্ষায়। তবে বিজেপি প্রার্থী তালিকা প্রকাশ না করলেও আলিপুরদুয়ার কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থীর দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন চা বলয়ের দাপুটে নেতা জন বারলা। জেলা বিজেপি সূত্রের খবর, আলিপুরদুয়ার কেন্দ্রের প্রার্থী হিসাবে মোট পাঁচজনের নাম রাজ্য নেতৃত্বের মাধ্যমে দিল্লী পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে জন বারলা ছাড়াও রয়েছেন মাদারিহাটের বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিগ্গা, কুমারগ্রামের প্রাক্তন বাম নেতা বর্তমানে বিজেপির একনিষ্ঠ সদস্য মনোজ ওরাঁও, চা বলয়ের পরিচিত নাম অতুল সুব্বা এবং গত ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে প্রায় ৩ লক্ষ ৩৬ হাজার ভোট ছিনিয়ে আনা বীরেন্দ্র বারা। কিন্তু, বাকী চার জনের তুলনায় এগিয়ে রয়েছেন জন বারলা, এমনটাই বলছে বিজেপির একাংশ। শুধু তাই নয়, বিজেপির আলিপুরদুয়ার জেলা নেতৃত্বের গুডবুকেও রয়েছেন শেষ পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপির হয়ে মাঠে নেমে ৫৬ দিনের হাজত বাস করা এই আদিবাসী নেতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here