kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, কোচবিহার: ইটভাটা দখলকে কেন্দ্র করে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ। আহত ৫ জন। চলে বোমাবাজি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশের লাঠিচার্জ। ঘটনাটি ঘটেছে কোচবিহারের তুফানগঞ্জ মহকুমার চিলাখানা ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের দেওচড়াই এলাকায়। ঘটনায় বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী আহত হয়েছেন। যার মধ্যে দু’জনের অবস্থা গুরুতর। একজনের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। আহতরা তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি। ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশবাহিনী টহল দিচ্ছে।

জানা গিয়েছে, ওই এলাকায় দুটি ইটভাটা রয়েছে। সেই ইটভাটায় কাদের নেতৃত্বে কর্মী নিয়োগ হবে, তা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ বাধে। এদিন সকাল থেকেই দেওচড়াই এলাকায় তৃণমূল-বিজেপি দুই পক্ষ জমায়েত করে। বিজেপি একটি মিছিল করে এলাকায়। মিছিল শেষে এক বিজেপি কর্মীকে মারধর করা হয় বলে তাদের অভিযোগ। এরপর এই দুই পক্ষের সংঘর্ষে বাধে। চলে বোমাবাজি। পরিস্থিতি সামাল দিতে তুফানগঞ্জ থানার পুলিশ লাঠিচার্জ করে। ঘটনায় একজনকে আটক করেছে তুফানগঞ্জ থানার পুলিশ। তৃণমূল কংগ্রেসে প্রাক্তন জেলা সভাপতি তথা উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ অভিযোগ করে বলেন, ইটভাটায় প্রতিবছর যে সব কর্মী কাজ করেন, তারাই এই বছরও কাজ করবেন। বিজেপি সেখানে জোর করে তাদের লোক ঢোকাতে গেলে সাধারণ মানুষ তার প্রতিবাদ করে। এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই। সাধারণ মানুষ প্রতিবাদ করলে বিজেপি বোমা ছোড়ে। তখনই পুলিশ লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

কোচবিহার জেলা বিজেপি সাধারণ সম্পাদক সুকুমার রায় বলেন, মুন্সি মারফত ইটভাটায় কর্মী নিয়োগ হয়। সেই মোতাবেক মুন্সির সঙ্গে বিজেপি ট্রেড ইউনিয়নের কথা হয়েছে। আর আজ যখন কর্মী নিয়োগ করার কথা, তখন তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা বিজেপির উপর হামলা চালায়। একজন বিজেপি কর্মীকে মারধর করে তার মাথা ফাটিয়ে দেয়। ঘটনায় আমাদের দু’জন কর্মী গুরুতর আহত অবস্থায় তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি। মোট চারজন আহত হয়েছেন। পুলিশ তৃণমূল কংগ্রেসকে না আটকে বিজেপি কর্মীদের উপর লাঠিচার্জ করেছে। ঘটনার জেরে তুফানগঞ্জের দেওচড়াই এলাকা উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে। গোটা এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here