ডেস্ক: সময় নষ্ট করার সময় আর নেই। রবিবার বিকেলে ঘোষিত হয়েছে লোকসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই মঙ্গলবার প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে দিতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথাই দলে শেষ কথা। প্রার্থী তালিকাও অবশ্যই তৈরি আছে তাঁর মস্তিষ্কের অন্দরে। কিন্তু দলের সঙ্গে আলোচনা করেই সংবাদ মাধ্যমের সামনে সেই ঘোষণা করবেন তৃণমূল নেত্রী। আর সেই উদ্দেশ্যে মঙ্গলবার দুপুরেই মুখ্যমন্ত্রীর কালীঘাটের বাড়িতে এক হেভিওয়েট বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছে। সেই বৈঠকে উপস্থিত থাকতে চলেছেন তৃণমূলের নির্বাচনী কমিটির ১২ সদস্য। এছাড়াও বিভিন্ন জেলার সভাপতিরাও উপস্থিত থাকবেন সেখানে। তৃণমূলের নির্বাচনী কমিটিতে রয়েছেন, পার্থ চট্টোপাধ্যায় ফিরহাদ হাকিমের মতো নেতারা। তবে তৃণমূলের অন্দরে খবর, ভোটের নির্ঘন্ট ঘোষণার পর রবিবার রাতেই ফোনের মাধ্যমে সিংহভাগ কাজ সেরে ফেলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। বিভিন্ন স্তরের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে প্রার্থীদের নাম একপ্রকার নিশ্চিত করে রেখেছেন মমতা। মঙ্গলবার সরকারিভাবে বৈঠক ডেকে বাকি সদস্যদের সামনে সেই নামগুলি প্রস্তাব করবেন তিনি। আর মমতার প্রস্তাবিত নামে তৃণমূলের কেউ ‘না’ বলবেন, তেমন ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা পশ্চিম দিকে সূর্য ওঠার মতো।

তবে গতবারের লোকসভা থেকে এবার পরিস্থিতি একটু আলাদা। গতবার পশ্চিমবঙ্গের শাসক হিসেবে প্রথমবার লোকসভা ভোটে লড়েছিল তৃণমূল। ২০১৪ সালে রাজনৈতিক মুখ বাদ দিয়ে বহু সিনে তারকাদেরও দেখা যায় ভোটে লড়তে। কিন্তু এবার সেই সম্ভাবনা কম। বিজেপিকে এক চিলতে জমি না ছেড়ে ৪২এ ৪২ আসন দখলই লক্ষ্য তৃণমূলের। তাই খুব ভাবনা চিন্তা করে এবার পা ফেলতে চান মমতা। কয়েকজন জয়ী প্রার্থী অবশ্যই নিজেদের আসনে লড়বেন। কিন্তু নতুন মুখ ও নতুন চমক দেখতে পাওয়ার সম্ভাবনাও প্রবল। তবে আগামিকালই যে তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ্যে আসতে চলেছে, তা নিয়ে সংশয় নেই বললেই চলে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here