kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, নদিয়া : প্রথম দফায় ভোট মিটে গিয়েছে৷ এখনও রাজ্যে বাকি ছ’দফা নির্বাচন৷ আর তার আগেই শাসকের দলীয় কোন্দলে উত্তপ্ত হয়ে উঠল নদিয়ার শান্তিপুর এলাকা৷ নির্বাচনী আবহাওয়ায় এভাবে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আশায় অস্বস্তিতে তৃণমূল কংগ্রেস৷ এলাকার তৃণমূল অঞ্চল সভাপতি ও তৃণমূলের পঞ্চায়েত মেম্বারকে ডেকে এনে মারধর ও খুনের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল যুব তৃণমূল নেতা ও তার অনুগামীদের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার শান্তিপুর থানার ফুলিয়ায়। ঘটনার প্রতিবাদে ও দোষীদের বিরুদ্ধে দলের তরফে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে নদীয়া জেলা পরিষদের সভাপতি রিক্তা কুন্ডু ও বিধায়ক শঙ্কর সিংহকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল কর্মীরা।

এই ঘটনার জেরে শুক্রবার ফুলিয়ায় তৃণমূল প্রার্থীর প্রচার কর্মসূচিও বাতিল হয়েছে। সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার রাতে তৃণমূল কংগ্রেসের অঞ্চল সভাপতি রঞ্জন বসু ও ফুলিয়া টাউনশিপ পঞ্চায়েতের মেম্বার বুদ্ধিস্বর মল্লিককে ফোন করে ডেকে তাদের ওপর চড়াও হয় শুভঙ্কর মুখার্জী ওরফে পিটার নামের যুব তৃণমূলের নেতা। অভিযোগ,ওই দুই তৃণমূল নেতাকে হেনস্থার পাশাপাশি মারধর ও খুনের হুমকিও দেয় পিটার নামের ওই তৃণমূল যুব নেতা।

অভিযোগ, এর আগেও একাধিকবার এই ধরণের ঘটনা ঘটিয়েছে পিটার। অভিযোগ, গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে তৃণমূলের দলীয় প্রার্থীদের বিরুদ্ধে নির্দল প্রার্থী দাঁড় করিয়ে দল বিরোধী কাজ করলেও তৃণমূল দলের তরফে পিটারের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। শুক্রবার সকালে ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে দলীয় কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে পড়েন সভাধিপতি রিক্তা কুন্ডু ও রানাঘাট উত্তর পশ্চিমের বিধায়ক শঙ্কর সিংহ। বর্তমানে তাদের ঘরে আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন আক্রান্ত তৃণমূল নেতা ও তাদের অনুগামীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here