ডেস্ক: জীবনে এমন কিছু সময় আসে যখন ‘শ্যাম রাখি না কূল রাখি’ পরিস্থিতির সম্মুখীন হয় মানুষ। এরকমই সময় এসেছিল মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের জীবনে। স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তারপরই বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা নিয়ে শিরোনামে উঠে আসেন তিনি। সম্পর্কের টানাপড়েনের মধ্য দিয়ে যাওয়ার সময় সংবাদ মাধ্যমের সামনেও তিনি সাফ জানান, কোনও ভাবেই বৈশাখীর সঙ্গ ছাড়বেন না তিনি।

কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে শোভনের এই আচরণে সন্তুষ্ট নন তা রাজ্যসভা নির্বাচনের সময়ই স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন ইশারায়। মেয়রকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেছিলেন, শুধুই প্রেম করছিস না কাজও করছিস? এরপর থেকেই দলের অন্দরে কান পাতলে শোনা যাচ্ছিল যে শোভনের এই ‘বন্ধুপ্রীতি’ নিয়ে খুব একটা সন্তোষজনক জায়গায় নেই হাইকমান্ড। আশঙ্কা সত্যি করে রবিবারই মেয়রকে ফোন করে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের পক্ষ থেকে বলা হয়, যদি দলে থাকতে হয় তবে বৈশাখীর সঙ্গে সম্পর্ক রাখা যাবে না। আর যদি বৈশাখীর সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে হয় তবে দল ত্যাগ করতে হবে।

এই প্রশ্নের পর খুব স্বাভাবিকভাবেই বৈশাখীর উপর দলকেই বেছে নেন শোভন। দল ছাড়া তাঁর পক্ষে কোনও ভাবেই সম্ভব না বলে জানিয়ে দেন তিনি। ফলে দলের স্বার্থে বান্ধবী বৈশাখীর সঙ্গে বন্ধুত্ব ছেদ করতে বাধ্য হন তিনি। শোভনের এই কঠিন সিদ্ধান্তের পর একটি বাংলা সংবাদ মাধ্যমকে দল এবং শোভনের জন্য আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান বৈশাখী।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here