ভোটে প্রাণের বলি বেড়ে হল ২, মৃত্যু ডোমকলের তৃণমূল নেতার

0
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, ডোমকল: এবারের লোকসভা নির্বাচনেও কার্যত ডোমকলে এড়ানো গেল না মৃত্যু। প্রায় এগারো দিন পর মৃত্যু হল ভোটের দিন জখম তৃণমূল নেতা তুজাম্মেল আনসারির(৫০)। উল্লেখ্য গত ২৩শে এপ্রিল তৃতীয় দফার নির্বাচনের দিন মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রে ভোট শুরুর আগে ডোমকল পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মানিকনগর এলাকা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। অভিযোগ সিপিআইএম ও কংগ্রেস আশ্রিত দুষ্কৃতিরা বোমাবাজি শুরু করে। ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার পথে আক্রান্ত হন তুজাম্মেল আনসারি সহ মোট তিনজন তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী।

ডোমকল মহকুমা হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাদের মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। তুজাম্মেল আনসারির অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে কলকাতায় স্থানান্তরিত করা হয়। কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে প্রায় এগারো দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে শুক্রবার বিকেলে তিনি মারা যান। এদিন হাসপাতালে তার দেহ নিতে উপস্থিত ছিলেন ডোমকলের পুরপ্রধান তথা তৃণমূল রাজ্য যুব সাধারণ সম্পাদক সৌমিক হোসেন। শনিবার সন্ধ্যায় তুজাম্মেল আনসারির মৃতদেহ মানিকগরে পৌছানোর কথা।

তুজাম্মেল আনসারির মৃত্যুর প্রসঙ্গে সৌমিক হোসেন জানান, ‘তুজাম্মেল আনসারি দলের স্থানীয় নেতা। তার স্ত্রী কাউন্সিলর হলেও বেশির ভাগ দায়িত্ব তাকেই সামলাতে হতো। দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি জানাছি। দোষীরা যারাই হোক না কেন, আইন আইনের পথেই চলবে। জানা গিয়েছে, গত ২৩শে এপ্রিল মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের ভোটের দিন ডোমকল পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মানিকনগর এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলর জাহানারা বিবির স্বামী তুজাম্মেল আনসারিকে লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়ার ঘটনা ঘটে। বুথের ৩০০ মিটারের মধ্যেই ওই ঘটনা ঘটেছিল। এমনকি অভিযোগ ওঠে, তৃণমূল কাউন্সিলারের সঙ্গে থাকা তৃণমূল কর্মীদেরও বাঁশ, লাঠি দিয়ে মারধর করে বাম ও কংগ্রেস আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। ঘটনার জেরে মাসাদুল ইসলাম ও মল্লিক মণ্ডল নামে দুই তৃণমূল কর্মী গুরুতর ভাবে জখম হয়। তবে সবথেকে বেশি খারাপ অবস্থা হয়েছিল তুজাম্মেল আনসারির। দীর্ঘ ১১দিন হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই চালিয়ে শুক্রবার বিকালে মারা যান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here