ডেস্ক: গতকাল শিলচর বিমানবন্দরে আটকে থাকার পর এদিন সকালের বিমান ধরে কলকাতা ফিরে আসলেন তৃণমূলের ৬ সাংসদ। অন্যদিকে, বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগের ডালি নিয়ে দিল্লি উড়ে যাচ্ছেন মমতাবালা ঠাকুর ও অর্পিতা ঘোষ।

গতকাল বিমানবন্দরে পুলিশের কাছে বাধা পাওয়ার পর বচসার ছবি সংবাদ মাধ্যমে ভাইরাল হতেই দেশজুড়ে শোরগোল পড়ে যায়। কেন্দ্র সহ বিজেপি সরকারকে কলকাতায় ফিরে একহাত নেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, অসমে সুপার ইমারজেন্সি চলছে। যে ১৪৪ ধারার কারণে জনপ্রতিনিধিদের বিমানবন্দর থেকে বেরোতে দেওয়া হয়নি তাকেও কটাক্ষ করে মমতা বলেন, অসমে যদি সত্যিই শান্তির পরিবেশ বজায় থাকে তবে ১৪৪ ধারা কেন? এরপর তৃণমূল সাংসদদের নজর বন্দি করে রাখা হয়।

সূত্রের খবর, তাদের দূরে হোটেলে নিয়ে যেতে যাওয়া হলেও সেখানে যেতে রাজি হননি তারা। গতকাল সারারাত বিমানবন্দরে কাটিয়ে আজ সকালে কলকাতার বিমান ধরেন ওই ৬ সাংসদ। অন্যদিকে, আজ তাঁরা গুয়াহাটি যেতে চাইলেও তাদের বাধা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ তুলেছেন ফিরহাদরা।

আজ সকালের ৭ টা ৪৫ এর বিমানে বাকিরা কলকাতা ফিরলেও দুপুরের বিমানে দিল্লি যাচ্ছেন মমতাবালা ঠাকুর ও অর্পিতা ঘোষ। সূত্রের খবর, বেলবন্ডে সই করে মুক্তি করা হয় প্রতিনিধিদের৷ বেলবন্ডে সই করান ডিআইজি দেবরাজ ঠাকুর৷ প্রায় ১৭ ঘণ্টা আটকে ছিল প্রতিনিধিদল। কলকাতায় দিরে সুখেন্দুশেখর রায় বলেন, আমাদের সঙ্গে অনুপ্রবেশকারীর মতো আচরণ করা হয়েছে। %E