ডেস্ক: ভুল হয়। ছোট খাটো ভুল হওয়াটা তেমন একটা দোষেরও নয়। তাই বলে এ কেমন ভুল? নির্বাচনী লড়াইয়ে নেমে দেওয়ালে দেওয়ালে নিজেদের জনবিরোধী বলে প্রচার শুরু করল খোদ তৃণমূল। রায়গঞ্জের তৃণমূল প্রার্থী কানহাইয়ালাল আগরওয়ালের দেওয়াল দেখে হাসি মজা ও বিদ্রুপে ভরে উঠল ফেসবুকের ওয়াল। সবুজ রঙে দেওয়ালে রাঙিয়ে বুক ফুলিয়ে নিজেকে জন বিরোধী বলে প্রচার চালাচ্ছেন রায়গঞ্জের ওই তৃণমূল প্রার্থী।

২০১৯ নির্বাচন উপলক্ষ্যে বাংলার রায়গঞ্জ কেন্দ্র এবাগ্র বেশ হাইভোল্টেজ। এখানে সিপিএমের তরফে প্রার্থী হিসাবে দাঁড়িয়েছেন মহম্মদ সেলিম, কংগ্রেসের হয়ে লড়াইয়ে আছেন দীপা দাসমুন্সি। হাইভোল্টেজ এই সমস্ত প্রার্থীদের যোগ্য জবাব দিতে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেখানে পাঠিয়েছেন তৃণমূলের কানহাইয়ালাল আগরওয়ালকে। দিদির পছন্দের প্রার্থীকে ভোটে জেতাতে উঠে পড়ে লেগেছেন কর্মীরা। ওই কেন্দ্রের বেশীরভাগ দেওয়াল নিজেদের অধিকারে নিয়ে দেওয়াল লিখনের পাশাপাশি, ফেস্টুন ব্যানারে একরকম ছেয়ে গিয়েছে রায়গঞ্জ। তবে কানহাইয়ালালের সমর্থনে রায়গঞ্জে যে দেওয়াল লেখা হয়েছে তাতে চোখ পড়তেই থমকে গেল অনেকেই। একটু ভালো করে দেখতে বোঝা গেল মস্ত বড় গণ্ডগোল করে ফেলেছে তৃণমূল। দেওয়ালে লেখা, কেন্দ্রে ‘জনবিরোধী’ সরকার গড়ে তুলতে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী কানহাইয়ালাল আরওয়ালকে এই চিহ্নে ভোট দিন। পাশে তৃণমূলের প্রতীক চিহ্ন। মুহূর্তে সেই ছবি দেওয়াল থেকে উঠে গেল ফেসবুকের ওয়ালে। হাসি আর মজায় ভরে উঠল ফেসবুক।

ওই ছবির প্রেক্ষিতে কেউ কেউ ফেসবুকে কমেন্ট করেছেন, ‘অশিক্ষিত কারে কয়?’ কেউ আবার লিখেছেন, ‘ডিম্ভাত খেয়ে দেওয়াল লেখার ফল’। বলার অপেক্ষা রাখে না ঘটনার জেরে বেশ বিপাকে পড়েছে রায়গঞ্জ তৃণমূল। বিশেষ ভাবে উল্লেখ্য, ছবিটির সত্যতা যাচাই করেনি mahanagar24x7। এই প্রসঙ্গে কানহাইয়ালাল বলেন, আমরা নিজেও জানি না এই দেওয়াল কোথায় লেখা রয়েছে। আমি নিজে দেওয়াল লিখেছি এমন কোনও দেওয়াল লেখা নেই। এটা বিরোধীদের কেউ করেছে তৃণমূলকে বদনাম করার জন্য। পুলিশ ও ডিএমকে অভিযোগ জানানো হয়েছে। বলা হয়েছে, যারা করেছে তাঁদের খুঁজে বের করুন।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here