নিজস্ব প্রতিবেদক, আসানসোল: আসানসোলের বরাকরের তৃণমূল কাউন্সিলর খালিদ খানের খুনের তদন্তে এবার নয়া মোড়। সোমবার খালিদ খানের খুনের ঘটনায় আসানসোল আদালতে গিয়ে আত্মসমর্পণ করলেন তৃণমূলের যুব নেতা কাদির শেখ। তিনি খালিদের খুনের অন্যতম অভিযুক্ত। এদিন খালিদের খুনের ঘটনায় ধৃত টিঙ্কু শেখকে পুলিশ আদালতে তোলার পর শুনানি চলার সময়ই কাদির সেখানে গিয়ে আত্মসমর্পণ করে।

সূত্রের খবর, দলীয় কাউন্সিলরের খুনের ঘটনায় আসানসোল তৃণমূলের যুব নেতা কাদির শেখের দিকে অভিযোগের আঙুল তো ছিলই। এদিন তার আদালতে আত্মসমর্পণের ঘটনায় সেই অভিযোগ আরও দৃঢ় হল। আরও একবার প্রকট হল তৃণমূলের অন্তর্দ্বন্দ্ব। কাদির শেখ যদি সত্যিই খালিদ খানকে খুন করে থাকে, তাহলে সে কেন একাজ করেছে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। সূত্রের খবর, আগামী পুর নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থীপদের টিকিট পাওয়া নিয়ে খালিদের সঙ্গে কাদিরের দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্ব ছিল। সম্প্রতি আগামী পুর নির্বাচনের নির্ঘণ্ট প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। তাই কাদির গোড়াতেই বাধা উপড়ে ফেলে কাউন্সিলর পদের টিকিট পাওয়ার পথ নিষ্কন্টক করতে চেয়েছিল বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কুলটি থানার পুলিশ।

প্রসঙ্গত, আসানসোল পুরনিগমের ৬৬ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর খালিদ খান গত শনিবার রাতে কুলটি থানার মনবেড়িয়া গ্রামে নিজের বাড়ির কাছে পায়চারি করছিলেন। সেই সময় হঠাৎই তিন দুষ্কৃতী মোটরবাইকে করে এসে খালিদকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। খালিদের পায়ে গুলি লেগে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে দুষ্কৃতীরা আবার তাকে গুলি করে। গুলির শব্দে এলাকায় চিৎকার চেঁচামেচি শুরু হতেই পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। তারপর খালিদকে আসানসোল জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানকার চিকিত্সক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

তারপর খালিদ খানের খুনিকে গ্রেফতারের দাবিতে টায়ার জালিয়ে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় এলাকাবাসী। চার বছর আগেও খালিদের ওপর আক্রমণ করা হয়েছিল বলে তারা জানায়। এরপর রবিবারই খালিদ খানের খুনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে টিঙ্কু শেখ নামে একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। যদিও মিথ্যা অভিযোগে তাকে ফাঁসানো হয়েছে বলে দাবি জানায় ধৃত টিঙ্কু শেখ।

র খুনের ঘটনায় গ্রেফতার ১৷ সোমবার ধৃতকে আসানসোল আদালতে পেশ করা হয়। ধৃতের নাম । প্রসঙ্গত, শনিবার বাড়ি থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে বরাকরের কাউন্সিলরকে গুলি করে পালায় দুষ্কৃতীরা।
পুরনো শত্রুতার জেরে খুন হতে হয় কাউন্সিলরকে এমনটাই জানিয়েছিলেন স্থানীয়রা। আসানসোলের বরাকর ৬৬ নম্বর ওয়ার্ডের
তৃণমূল কাউন্সিলর খালিদ খান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here