modi_bihar

ডেস্ক: ইতিমধ্যেই তিন দফা মিলিয়ে প্রায় ৩০০ লোকসভা আসনে নির্বাচন হয়ে গেছে। জাতীয় স্তরে বিজেপির এখন ঠিক কী হাল তা বোঝা দায়। যদিও দলের তরফে থেকে বারংবারই নিজেদের নিশ্চিচ জয়ের কথা বলতে শোনা যাচ্ছে নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহদের। প্রচারেও সেই জৌলুস ছড়াতে পিছপা হচ্ছেন না কেউই। জনগণের কাছে পৌঁছতে আরও বেশি করে সেনার ‘ব্যবহার’ করছে বিজেপি। এতোদিনে যে কটা জায়গায় মোদী সভা করেছেন, ভাষণ দিয়েছেন, সবেতেই স্থান পেয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। বিহারের জনসভাও তার ব্যতিক্রম নয়।

বিহারের দ্বারভাঙ্গায় জনসভা করতে গিয়ে সেই বালকোট প্রসঙ্গ নিয়ে বিরোধীদের একহাত নিলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, বিরোধীরা প্রশ্ন করে যে প্রধানমন্ত্রী সবসময় সন্ত্রাস নিয়ে কেন কথা বলেন। তাঁর কথায়,

বিরোধীদের কাছে সন্ত্রাসবাদটা কোনও ইস্যুই নয়। মানুষ যা বোঝে, বিরোধীরা সেটা বোঝে না। এই প্রসঙ্গে শ্রীলঙ্কার বিস্ফোরণের কথা টেনে এনেও মোদী বলেন, সেখানে যে এত বড় সন্ত্রাস হল, সেটা কি কোনও ইস্যু নয়?

মোদীর বক্তব্য, বালাকোট এয়ারস্ট্রাইকের পর যারা প্রমাণ নিয়ে প্রশ্ন তুলছিল, তারা এখন গায়েব হয়ে গেছে। এয়ারস্ট্রাইক নিয়ে তাদের কোনও কিছু আর বলার নেই, তাই তারা ইভিএম নিয়ে সরব হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীকে গালিগালাজ করছে। তবে জনগণের উদ্দেশে তিনি বলেন,

এই চৌকিদার মানুষের ভোট চায়, সন্ত্রাসবাদকে দমন করার জন্য। জনসভায় আসা সমর্থকদের উদ্দেশে মোদী বার্তা দেন, এই চৌকিদার এখন পাহারায় রয়েছে, না কোনও জঙ্গি মডিউল হবে, না কোনও জঙ্গি বেঁচে থাকবে।

একইসঙ্গে তিনি বলেন, যে টাকা সাধারণ মানুষের কাজ লাগানোর কথা ছিল, তা বোমা, অস্ত্র বানাতেই লাগিয়ে ফেলা হয়েছে। গত ৪০ বছরে মানুষের স্বার্থে কোনও কাজ হয়নি। এবার সেই টাকা মানুষের কাজে ব্যবহার করার সময় এসেছে বলে দাবি করেন মোদী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here