kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: প্রথমে ভাইজ্যাগ, তারপর পুনে আর সবশেষে রাঁচি। দক্ষিণ আফ্রিকার উপর একেবারে বুল্ডোজার চালিয়ে সিরিজ জিতে নিয়েছে ভারত। তাও আবার একেবারে হোয়াইট ওয়াশ। ব্যাটে ভাল পারফরম্যান্সের পাশাপাশি বল হাতেও দুর্দান্ত পারফর্ম করেছে ভারতীয় দল। আর ম্যাচের পর ভারতীয় দলের প্রশংসায় পঞ্চমুখ দলের প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রী। সাফ জানালেন, তাঁর দল এখন আর পিচ কেমন, সেটা নিয়ে ভাবে না।

ম্যাচের পর রবি শাস্ত্রী বলেন,

‘আমরা এখন আর পিচ কেমন, সেটা আমাদের ভাবনাতে আনিই না। ভার মে গ্যায়া পিচ (পিচ নিপাত যাক)। পিচ যেমনই হোক, আমরা ২০ উইকেট নেওয়ার জন্যই ঝাপাই, সেটা জোহানেসবার্গ হোক, কি মুম্বই, দিল্লি বা মেলবোর্ন হোক না কেন।’

তিনি আরও বলেন,

‘আমরা যদি বিপক্ষের ২০ উইকেট নিতে সক্ষম হই, আর আমাদের ব্যাটিংও যদি ভাল হয়, তাহলে ওই ফেরারি চালু হওয়ার মতো ব্যাপার। আমরা সব উইকেট নিতে সক্ষম হলেই বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেতাব জিতে নিতে পারব।’

এই সিরিজ জয়ের জন্য কোনও একজনের অবদান দেখতে নারাজ রবি শাস্ত্রী। ‘এই জয় দলগত সাফল্য। সাধারণত আমাদের দেশের মাটিতে ২ বা ৩ জনের জন্যই আগে আমরা ম্যাচ জিতে নিতাম। কিন্তু এখন সকলেই সমান ভাবে জয়ের অংশীদার। আমাদের দলের অধিনায়ক সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছে, পুনেতে দ্বিশতরান করেছে। ওপেনার হিসেবে রোহিত খুব ভাল পারফর্ম করেছে, মায়াঙ্কও দুর্দান্ত। মিডল অর্ডারে অজিঙ্কা বা পূজারাও ভাল খেলেছে। তো সব মিলিয়ে দলগতভাবে ভাল খেলেই আমরা এই জয় পেয়েছি’, বলেন হেড কোচ রবি শাস্ত্রী।

এই সিরিজে দুর্দান্ত বল করেছেন ভারতীয় বোলাররা। শেষ দুই টেস্টে ভারতীয় বোলারদের দাপতেই ইনিংস পরাজয় হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার। তিন টেস্টে ভারত মোট ৬০ উইকেট নিয়েছে। সেখানে দক্ষিণ আফ্রিকা ভারতের মোট ২৪টি উইকেট ফেলতে পেরেছে। বিশেষ ভাবে উল্লেখ করতে হয় ভারতীয় পেসারদের কথাও। এই সিরিজে বুমরাহ না থাকায় শামি, উমেশ বা ইশান্তদের উপরই গুরুদায়িত্ব ছিল। ভারতের স্পিনিং ট্র্যাকে যেখানে স্পিয়ারদেরই দাদাগিরি চলে, সেখানে ভারতীয় পেসাররা মোট ২৬টি উইকেট নিয়েছেন তিন টেস্ট মিলিয়ে। আর মহম্মদ শামি একাই নিয়েছেন ১৩টি উইকেট।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here