ডেস্ক: প্রতিপক্ষকে মিডিয়ার সামনে যতই তুচ্ছ তাছিল্য করা হোক না কেন, যুদ্ধের মাটিতে শত্রুপক্ষকে যে কোনও ভাবেই অবহেলা করতে নেই তা বেশ ভালোই জানেন মমতা। তাই মঙ্গলবার প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর সমস্ত প্রার্থীকে নিয়ে হাইভোল্টেজ বৈঠকে বসছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবারের এই বৈঠক থেকেই সমস্ত প্রার্থীদের কানে যুদ্ধের মন্ত্র দিয়ে দেবেন তিনি। কোন পথে কীভাবে এগোলে জয় আসবে সহজে তারই প্রাথমিক খসড়া তৈরি হবে কালীঘাটে এদিনের বৈঠকে। বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন তৃণমূলের টিকিট পাওয়া ৪২ জন প্রার্থী সহ দলের শীর্ষ স্থানীয় নেতৃত্বরা।

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের মতো ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনেও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের বাইরে একাধিক ব্যক্তিকে সংসদ ভবনে ঢোকার জন্য টিকিট দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। তালিকায় রয়েছেন টলিউডের দুই অভিনেত্রী নুসরৎত ও মিমি। পাশাপাশি কৃষ্ণগঞ্জের খুন হয়ে যাওয়া বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসের স্ত্রী রূপালি বিশ্বাসও এবার টিকিট পেয়েছেন লোকসভার। স্বামী রাজনীতিতে পা রাখলেও রাজনীতি সম্পর্কে খুব বিশেষ অভিজ্ঞতা নেই তাঁর। সংসদীয় রাজনীতির দিক দিয়ে অজ্ঞ এই সমস্ত ব্যক্তিদের লোকসভার পাঠ দিতেই কালীঘাটে এদিন বৈঠক ডেকেছেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দুপুর তিনটেয় হওয়া এই বৈঠকে মমতা বুঝিয়ে দেবেন কীভাবে প্রচারে নামতে হবে প্রার্থীদের। কোন কোন ইস্যুতে আক্রমণ শানাতে হবে বিরোধীদের। কোনটা করা উচিৎ আর কোনটা বিপদ ডেকে আনতে পারে তাঁদের জন্য। পাশাপাশি, সমস্ত প্রার্থীদের প্রচারের দিনক্ষণের প্রাথমিক খসড়াও এখান থেকে তৈরি করা হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ জল্পনা শেষে মঙ্গলবার ঘোষিত হয়েছে লোকসভা নির্বাচনের ৪২ জন প্রার্থীর নাম। যে তালিকায় রয়েছেন একাধিক নতুন মুখ। ওদিকে ওঁত পেতে বসে রয়েছে বিজেপিও। এবারের নির্বাচনে বাংলা থেকে অন্তত ২১ টি আসন তুলতে মরিয়া তারা। তৃণমূল বিমুখ একাধিক নেতাকে দলে ঢোকানোর জন্য তৈরি হয়ে রয়েছেন মুকুল দিলীপরা। লোকসভার প্রচারের জন্য একাধিক চমক রাখছে বিজেপি। আগামী দুই একদিনের মধ্যেই ঘোষিত হয়ে যাবে বিজেপির প্রার্থী তালিকা। পতিপক্ষ যে এবার বেশ শক্তিশালী তা অনুমান করে সেইমতো রাস্তা তৈরিতে মাঠে নামলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here