news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: বৈঠকেও কাটল না জট। টলিপাড়ার শ্যুটিং নিয়ে থেকেই গেল বিভ্রান্তি। গত বৃহস্পতিবার টলিপাড়ার শ্যুটিং নিয়ে একটি জরুরি বৈঠক হয়। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের পূর্ত মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ানস অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়ার সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস, আর্টিস্ট ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়, অভিনেতা শঙ্কার চক্রবর্তী ও বিভিন্ন চ্যানেলের কর্তাব্যক্তিরা, প্রযোজক ও ইম্পার সভাপতি পিয়া সেনগুপ্ত।

করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউন উঠে গেলে কীভাবে শুরু হবে শ্যুটিং? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতেই এই মিটিং ডাকা হয় কিন্তু গত বৃহস্পতিবারের এই মিটিং নিষ্ফলা থেকে গিয়েছে বলে খবর। এমনিতেই লকডাউনের আগে থেকেই করোনাভা্রাস অতিমারীর সাবধানতার কারণে গত ১৮ মার্চ থেকে বন্ধ হয়ে যায় টলিপাড়ার শ্যুটিং। একাধিক চ্যানেলে এখন চলছে ধারাবাহিকের রিপিট টেলিকাস্ট, কিছু কিছু চ্যানেলে আবার চলছে মোবাইলে শ্যুট করা বিশেষ পর্ব। কিন্তু এইভাবে আর কতদিন? অভিনতা–অভিনেত্রী থেকে শুরু করে টেকনিশিয়াদের মনে একটাই প্রশ্ন। সূত্রের খবর, আগামী ২ জুন আরও একবার আর্টিস্ট ফোরামের সম্পাদক ও ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ানস অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়ার সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস আলোচনায় বসবেন। সঙ্গে টলিউডের সমস্ত প্রযোজকদের সঙ্গে আলোচনা করবেন ইম্পা’র সভাপতি পিয়া সেনগুপ্ত।

কোভিড–১৯ অতিমারী আবহের মধ্যে কীভাবে ও কী কী সাবধানতা অবলম্বন করে শ্যুটিং করতে চান অভিনেতা–অভিনেত্রী ও প্রযোজকরা তা বিস্তারিত জানাবেন তিনি। এরপরেই আবারও ৪ জুন আরও একটি বৈঠক হওয়ার কথা, আশা করা যাচ্ছে ওইদিন এই সমস্যার সমাধান সূত্র বের হতে পারে। ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে ও ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ানস অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়ার সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস যে কোনও ধারাবাহিক ও ছবির পোস্ট প্রোডাকশনের কাজের অনুমতি দিয়েছেন। কিন্তু আপাতত কোনও ব্যাঙ্কিং নেই ফলে ধারাবাহিকের কাজ শুরু করতে না পারায় আশঙ্কার মেঘ জমা হচ্ছে টলি পাড়ায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here