kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, বিধাননগর: রাত পোহালেই বিশ্বকর্মা পুজো। বিশ্বকর্মা পুজোয় ঘুড়ি ওড়ানো বাঙালির বহু প্রাচীন রীতি। বিশ্বকর্মা পুজোর ঘুড়িতে লেগেছে রাজনীতির রং। একদিকে যেমন তৃণমূল কংগ্রেস, অন্যদিকে তাদের হাড্ডাহাড্ডি চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছে বিজেপি। কলকাতা ও শহরতলির বাজারে দুই যুযুধান রাজনৈতিক দলের ঘুড়ির হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে। বিজেপি সমর্থকদের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং ‘ভারত মাতা কি জয়’ লেখা কিংবা পদ্ম ফুলের প্রতীক চিহ্ন ওয়ালা ঘুড়ি নিয়ে হাজির বিক্রেতারা। অন্যদিকে, তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি ও তৃণমূলের প্রতীক চিহ্ন দেওয়া ঘুড়িও বিক্রি হচ্ছে রমরমিয়ে।

এক কদম এগিয়ে অবশ্য সুজিত বসুর নির্দেশে ও বিধাননগরের ৩৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নির্মল দত্তর উদ্যোগে বুধবার উৎসবের আয়োজন করা হয়। এদিন একাই আকাশে রাজত্ব করেছে তৃণমূলের ঘুড়ি। ময়দানে কেউ ছিল না। অবশ্য আগামীকাল কোন রাজনৈতিক দলের ঘুড়ি আকাশে রাজত্ব করে এবং কোন রাজনৈতিক দলের ঘড়ি ভোকাট্টা হয়ে পড়ে থাকবে মাটিতে তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

ধর্মীয় অনুষ্ঠানে রাজনীতির ছোঁয়া অবশ্য কোনও নতুন বিষয় নয়। এর আগে রাখি উৎসবে বিজেপি এবং তৃণমূল দুই দলেরই প্রতীক চিহ্ন দেওয়া রাখি বাজারে এসেছিল। রাজনৈতিক দলের সমর্থকদের মন কাড়তে বিক্রেতারা কোনও কিছু ভাবতে নারাজ। এমনিতেই করোনার জেরে বিক্রি-বাট্টা মাথায় উঠেছে। ঘুড়ির বিক্রিও হচ্ছে অন্য বছরের তুলনায় কম। ফলে রাজনীতির রং লাগিয়ে যদি দুটো ঘুড়ি বিক্রি বেশি হয়, তাতে ক্ষতি কী- বলছেন বিক্রেতারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here