ডেস্ক: দীর্ঘ মামলার জটে আটকে রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচন। নির্ধারিত দিনে পঞ্চায়েত ভোট হবে কিনা তা নিয়ে রাজ্যবাসীর মনে তৈরি হয়েছিল সংশয়। এরই মাঝে গত কয়েকদিন ধরে সমস্ত পক্ষের বক্তব্য শোনার পর বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল, আগামীকালই বিকেল সাড়ে চারটায় রায় ঘোষণা করবে আদালত। একইসঙ্গে আগামীকাল পর্যন্ত নির্বাচন পক্রিয়ার উপর জারি থাকবে স্থগিতাদেশ।

গত সোমবার থেকে পঞ্চায়েত মামলা নিয়ে শুনানি চলছে হাইকোর্টের বিচারপতি সুব্রত তালুকদারের সিঙ্গেল বেঞ্চে। গত কয়েকদিন ধরে শাসকদলের আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, সিপিএমের আইনজীবী বিকাশ ভট্টাচার্য্য, বিজেপি ও কংগ্রেসের আইনজীবীদের বক্তব্য শোনেন বিচারপতি। বৃহস্পতিবার সকালে এই মামলার শুনানিতে প্রথমে সাওয়াল করেন নির্বাচন কমিশনের সচিব নীলাঞ্জন শাণ্ডিল্য। পঞ্চায়েত নির্বাচন পক্রিয়া পিছিয়ে দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি আদালতকে জানান, ‘ভোট যদি পিছিয়ে যায় তবে সমস্যা হবে। সামনে রমজান মাস, এই সময় বহু মানুষই তাঁদের ধর্মীয় রীতিনীতি মেনে চলেন, সেক্ষেত্রে ওই সময়ে ভোট করানো অসম্ভব। তাই রমজান মাসের আগেই সম্পন্ন করতে হবে পঞ্চায়েত নির্বাচন।’

এই পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের তরফ থেকে কমিশনকে প্রশ্ন করা হয়, ৯ তারিখ সুপ্রিমকোর্ট সুষ্ঠভাবে নির্বাচন করানোর জন্য কমিশনকে যে নির্দেশ দিয়েছে সে বিষয়ে কি পদক্ষেপ নিয়েছে কমিশন। এর পরিপ্রেক্ষিতে কমিশন জানায়, সুপ্রিমকোর্টের নির্দেশ কার্যকর করার জন্য সবরকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। নতুন করে বেশ কয়েকটি মনোনয়নও জমা পড়েছে। গত কয়েকদিনের সওয়াল জবাবের পর সমস্ত পক্ষের বক্তব্য শুনে বিচারপতি সুব্রত তালুকদার আরও একদিন পঞ্চায়েত নির্বাচনী পক্রিয়ার উপর স্থগিতাদেশ বাড়িয়ে দেন। সেইসঙ্গে বলেন, প্রত্যেকের বক্তব্য গুরুত্ব দিয়ে বিচার করে আগামীকাল বিকেলে পঞ্চায়েত মামলার রায় দেবে আদালত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here