kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদা: টোটোয় বিস্ফোরণের ঘটনায় তিন দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও দেখা মেলেনি ফরেনসিক দলের৷ ঘটনাস্থল থেকে নির্গত পচা দুর্গন্ধে দিন কাটানো অসম্ভব হয়ে উঠেছে স্থানীয়দের৷ এই পরিস্থিতিতে অবিলম্বে এলাকা পরিষ্কারের দাবি জানাচ্ছেন স্থানীয়রা৷ গত বুধবার বিকেলে মালদা শহরের ঘোড়াপির সংলগ্ন এলাকায় হঠাৎ একটি টোটোয় বিস্ফোরণ হয়৷ চালকের শরীরের বিভিন্ন অংশ চারিদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে৷ এলাকায় কালো ধোঁয়ায় ভরে যায়৷ স্থানীয় বাসিন্দারা তড়িঘড়ি পুলিশে খবর দিলে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছন পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া-সহ অন্যান্য পুলিশ কর্তারা৷

প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ সুপার জানিয়েছিলেন, টোটোর ব্যাটারি বিস্ফোরণের কারণেই এমন ঘটনা ঘটেছে৷ তবে তা মানতে চাননি উত্তর মালদার সাংসদ সহ-স্থানীয়দের একাংশ৷ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এনআইএ তদন্ত দাবি করেন উত্তর মালদার বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু৷ ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে বিস্ফোরণ কাণ্ডে মৃত চালকের নাম ইলিয়াস শেখ৷ তাঁর বাড়ি কালিয়াচকের সুজাপুরে৷ ঘটনার তদন্তের জন্য কলকাতা থেকে ফরেনসিক দল আসছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়৷ তবে ঘটনার তিনদিন পরেও দেখা মেলেনি ফরেনসিকের৷

এদিকে, তিনদিন ধরে এলাকায় পড়ে থাকা ওই টোটো চালকের দেহাংশ পচে গন্ধ বের হতে শুরু করেছে৷ এই পরিস্থিতিতে সেখানে বসবাস করা কার্যত অসম্ভব হয়ে উঠেছে স্থানীয়দের৷ সূত্র মারফত জানা যায়, শনিবার বিকেলে ফরেনসিক দল ঘটনাস্থলে পৌঁছবে৷ সেই সূত্রের ভিত্তিতে সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছন৷ সাংবাদিকদের সামনে পেয়ে নিজেদের ক্ষোভ উগরে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা৷

স্থানীয় এক বাসিন্দা অনিতা রায় বলেন, দুর্ঘটনা তিন দিন আগে ঘটেছে৷ এখনও চারিদিকে দেহাংশ ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে৷ দুর্গন্ধে দিন কাটানো যাচ্ছে না৷ ঘরও পরিষ্কার করা যাচ্ছে না৷ পুলিশ জানিয়েছে, কলকাতা থেকে তদন্তকারীরা এসে সমস্ত কিছু পরীক্ষা করবে৷ আমরা এই পরিস্থিতিতে বসবাস করব?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here