kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, সুতি(মুর্শিদাবাদ): করোনা মোকাবিলায় তিনসপ্তাহ ব্যাপী সারা ভারতজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। আর এর ফলে ভিনরাজ্যে কাজ করতে যাওয়া শ্রমিকরা ব্যাপক সমস্যায় পড়েছেন। ঠিকঠাক ভাবে না খেতে পেয়ে প্রায় অর্ধাহারে ঘরবন্দি হয়ে থাকতে হচ্ছে। ওড়িশার ভুবনেশ্বরে কাজ করতে গিয়েছিলেন এরাজ্যের প্রায় ৫৫জন শ্রমিক। কিন্তু ভারতজুড়ে লকডাউন থাকায় তারা এখন বাড়ি আসতে পারছেন না।

জানা গিয়েছে, ঠিকঠাক ভাবে খাবার না পেয়ে তারা এখন প্রায় অর্ধাহারে জীবন কাটাচ্ছেন।ওড়িশা পুলিশ-প্রশাসনের কাছ থেকেও কোনও ধরনের সাহায্য পাননি তারা। সূত্রের খবর, কয়েক মাস আগে ওড়িশার ভুবনেশ্বরে রাজমিস্ত্রির কাজ করতে গিয়েছিলেন মুর্শিদাবাদের সুতি  -১ ব্লকের হাড়োয়া গ্রামপঞ্চায়েত এলাকার প্রায় ৫৫জন শ্রমিক। কিন্তু করোনা আতঙ্কে ভারতজুড়ে লকডাউন ঘোষণা হওয়ার ফলে তারা এখন ভুবনেশ্বরের ১নং এয়ারপোর্ট ও অশোকনগর এলাকায় আটকে পড়ে আছেন। স্থানীয়দের মধ্যে অনেকেই ওই শ্রমিকদের নিজ রাজ্যে চলে যাওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করছেন।

হাজারি সেখ নামে ওই এলাকায় আটকে পড়া এক শ্রমিক জানিয়েছেন, আমরা প্রত্যেকেই এখানে দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে রাজমিস্ত্রির কাজ করি। যে টাকা আয় করি তা পরিবারকে পঠিয়ে দিই। এখন আমাদের কাছে টাকা-পয়সা নেই বললেই চলে। আমরা প্রচণ্ড আতঙ্কের মধ্যে ঘরবন্দি হয়ে আছি। খাবার পাচ্ছি না। কেউ কেউ আতঙ্কে কান্নাকাটি করছে।

এদিকে, এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জঙ্গিপুরের সাংসদ খলিলুর রহমান জানিয়েছেন, তিনি বহিঃরাজ্যে আটকে পড়া মানুষদের সম্পর্কে অবগত আছেন। যারা যে রাজ্যে আছেন, সেই রাজ্যের প্রশাসনের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা করা হচ্ছে। কেউ যাতে অর্ধাহারে-অনাহারে না থাকেন সেই দিকে নজর দেওয়া হচ্ছে। তাদের কী করে ফেরানো যায়, টা দেখা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here