kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হওয়ার পর কাল বিকেল থেকেই ছড়িয়ে পড়ে অশান্তি। যা এখনও অব্যাহত। রাস্তা অবরোধ, পার্টি অফিস ভাঙচুরের পাশাপাশি কান্নাকাটি করে দল ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা করেছেন একাধিক নেতা। এরইমধ্যে সেলিব্রিটি সমাজের প্রার্থীদের নিয়ে এখনও অসন্তোষ জারি। ইতিমধ্যে ব্যারাকপুর, আসানসোল, বাঁকুড়ার মতো প্রভৃতি কেন্দ্রে সেলিব্রিটি সমাজে তারকাদের প্রার্থী করা নিয়ে ফুঁসছেন স্থানীয় তৃণমূলের একাংশ।

প্রায় সর্বত্র দাবি উঠেছে, বদল করতে হবে তারকা প্রার্থীদের। তাদের বদলে সেই সব জায়গায় ভূমিপুত্রকে প্রার্থী করতে হবে। এমন আবহে এবার অন্য ছবি দেখা গেল তৃণমূল প্রার্থী অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিককে ঘিরে। তাঁর ক্ষেত্রে বিক্ষোভ নয়, তাঁকে রীতিমতো বরণ করে নিলেন তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা।

নির্ধারিত সময়ের প্রায় দু’ঘণ্টা পর এসে পৌঁছলেন কাঞ্চন। তাঁকে দেখতে ভিড় জমছিল বিকেল থেকেই। স্বাভাবিক ভাবে প্রার্থী আসার পর তৈরি হল বিশৃঙ্খলা। একবার তাঁকে ছুঁতে, হাত ধরতে পড়ে গেল হুড়োহুড়ি। রাস্তায় উল্টে পড়ে গেলেন কেউ কেউ। আবার উঠে দাঁড়িয়ে ছুটলেন গাড়ির দিকে। আর এমন হুড়োহুড়ির মধ্যেই শিবতলা তৃণমূল পার্টি অফিসে ফুল-মালা, শঙ্খধ্বনিতে সংবর্ধনা দেওয়া হল দলের প্রার্থী অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিককে।

কাঞ্চন মল্লিক বলেছেন, দলীয় কর্মীদের উষ্ণতা আমার মন জয় করে নিয়েছে। আমি উত্তরপাড়ার মানুষের পাশে আছি। গাড়িতে বসে হাত নাড়িয়ে নয়, বিশ্বাস করুন মানুষের পাশে এসে মানুষের কাজ করার জন্য আমি এসেছি। উত্তরপাড়ার তৃণমূল প্রার্থী ‘বহিরাগত’ প্রশ্নে বলেন, প্রবীর ঘোষাল তো চলে গিয়েছেন বিজেপিতে। তাই বহিরাগত তো তিনি।

এবিষয়ে প্রবীর ঘোষাল বলেন, ‘কোন্নগরে আমার বাড়ির পুজোর বয়স পাঁচশো বছর। তাই আমাকে যদি কেউ বহিরাগত বলেন, তাকে লোকে পাগলও বলতে পারে। সেলিব্রিটি প্রার্থী হলে কী হয়, তা উত্তরপাড়ার মানুষ টের পেয়েছে আগে। বিজেপি এমনিতে ঊর্বর জমির ওপর দাঁড়িয়ে আছে। তাই তৃণমূল স্থানীয় প্রার্থী খুঁজে পায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here