নির্বাচনী কাজে সদ্য জেল ফেরত আসামীদের লাগাচ্ছে তৃণমূল: কমিশনে অভিযোগ বিজেপি প্রার্থীর

0
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিনিধি, খড়্গপুর: নির্বাচনী প্রচারের প্রায় শেষলগ্নে সব পক্ষই৷ তাতে চাপানউতোর অব্যহত খড়্গপুরে। এবার তৃণমূলের নির্বাচনী কাজে দুষ্কৃতীদের ব্যবহারের অভিযোগ তুলল বিজেপি। এই অভিযোগ লিখিত ভাবে ছবি-সহ নির্বাচন কমিশনে পাঠানো হয়েছে বলে জানান বিজেপির প্রার্থী। অভিযোগ অস্বীকার তৃণমূলের। পাল্টা অভিযোগ করছে তারাও।
খড়্গপুর বিধানসভা উপনির্বাচনে ত্রিমুখী লড়াই হচ্ছে।

একদিকে তৃণমূলের প্রার্থী হিসেবে খড়্গপুর পুরসভার পুরপ্রধান প্রদীপ সরকার রয়েছেন। দলের কৌশল নির্ধারক পিকে টিম-সহ শুভেন্দু অধিকারীর তত্ত্বাবধানে প্রচার করছেন দিনরাত। অন্যদিকে, বিজেপি’র জেতা আসনে নিজেদের স্থান ধরে রাখার লড়াইয়ে সকাল থেকে রাত খড়্গপুর শহর চষে বেড়াচ্ছেন বিজেপি প্রার্থী প্রেমচাঁদ ঝা। পেছনে বিজেপি’র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ-সহ কেন্দ্রীয় নেতাদের পরামর্শ আছে। রয়েছেন বাম-কংগ্রেসের জোটের প্রার্থী চিত্ত মণ্ডল। প্রবীণ এই প্রার্থী একজন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক। জ্ঞানসিং সোহন পাল তথা চাচা-র দীর্ঘ পুরনো আসনকে উদ্ধারের লড়াই করতে পথে ঘাটে ঘুরে।

তবে বিজেপি, বাম, কংগ্রেস প্রার্থীকে তেমন আমল না দিলেও তৃণমূলের প্রার্থীকেই প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ধরেই এগোচ্ছেন। কারণ প্রচারে এগিয়ে থাকতে তৃণমূল নাকি একাধিক খারাপ পথও ধরছে। বিজেপির প্রার্থী প্রেমচাঁদ ঝা প্রচারের ফাঁকে শনিবার অভিযোগ করেন, তৃণমূল নির্বাচনের কাজে সদ্য জেল থেকে ছাড়ানো আসামীদের ব্যাবহার করছে। পুলিশের সঙ্গে যোগসাজশ করে অনেক পুরনো আসামীদের ছাড়িয়ে এনেছে। তাদের নিয়ে মিছিল করতে দেখা গিয়েছে। আমরা সেই সব ছবি ও নাম উল্লেখ করে নির্বাচন কমিশনে পাঠিয়েছি।

অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূলের প্রার্থী প্রদীপ সরকারের দাবি, প্রেমচাঁদবাবু নিজেই ক্রিমিনাল কেসের আসামী। হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে লড়াইয়ে নেমেছেন। ফলে ওনার কথার কোনও মানে হয় না। অভিযোগ থাকলে কমিশন দেখুক। অভিযোগ ভিত্তীহীন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here