kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, হুগলি: করোনা ভাইরাসের জেরে চলা লকডাউনের মাঝে বাজার এলাকা সরানোকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয় উঠল হুগলির খানাকুলের বালিপুর বাজার এলাকা। সংঘর্ষের মাঝে এক পক্ষ অপর পক্ষের বিরুদ্ধে মারধর ছাড়াও বোমাবাজি, গুলি চালানোর অভিযোগ এনেছে। ঘটনার পর এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনায় যুক্ত দু’জনকে গ্ৰেফতার করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, লকডাউনকে কেন্দ্র করে বালিপুর বাজারের প্রচুর মানুষের জমায়েত সরাতে রাজি হন বালিপুর পঞ্চায়েতের প্রধান সাবির আলি খন্দকার। বাজার কেন অন‍্যত্র সরানো হল, তা নিয়ে প্রতিবাদ করে বচসায় জড়িয়ে পড়ে খানকুল এক ব্লকের যুব সভাপতি তৃণমূল নেতা শেখ সাকিমের অনুগামীরা। অভিযোগ, তার কিছুক্ষণ পরেই প্রধানের অনুগামী তৃণমূল নেতা নবী ও তার দলবলের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে শেখ সাকিম ও তার অনুগামীরা। এমনকী, সাকিমের দেহরক্ষী শূন্যে দুই রাউন্ড গুলি চালান বলেও অভিযোগ। সংঘর্ষের জেরে আহত হয় নবী’র বেশ কয়েকজন অনুগামী-সহ এক সিভিক ভলান্টিয়ার। সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে খানাকুল থানার পুলিশ। অভিযোগ, পুলিশকে লক্ষ্য করেও বোমাবাজি করা হয়। তারপর ঘটনাস্থলে যায় খানাকুল থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী ও র‍্যাফ। ঘটনাস্থল থেকে কয়েকটি তাজা বোমা উদ্ধার করেছে পুলিশ। বোমাবাজির ঘটনায় যুক্ত দুই তৃণমূল কর্মী শেখ সাদ্দাম এবং শেখ রাজেশকে গ্রেফতার করেছে খানাকুল থানার পুলিশ। ঘটনার জেরে সুনসান বালিপুর বাজার এলাকা। বাজারে মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী।

এ প্রসঙ্গে জেলা তৃণমূল সভাপতি দিলীপ যাদব বলেন, যেখানে করোনা মোকাবিলায় রাজ‍্য-সহ গোটা দেশ লড়াই করছে, সেখানে এই ধরনের ঘটনা মোটেই কাম‍্য নয়। পুলিশকে বলা হয়েছে, ঘটনায় যারা যুক্ত তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব‍্যবস্থা নিতে। বিজেপি আরামবাগ সাংগঠনিক জেলা সভাপতি বিমান ঘোষ ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here