kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: ‘এই জায়গাকে শীতলকুচি বানাবেন না’। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের দিকে আঙুল উঁচিয়ে এমনই হুঁশিয়ারি দিতে দেখা গেল বারাসতের তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারকে। আজ তিনি মধ্যমগ্রামের একটি বুথে ভোট দিতে আসেন। সেই সময় তাঁর সচিত্র পরিচয়পত্র দেখতে চান এক জওয়ান। আর এতেই রীতিমতো ক্ষুব্ধ হন ওই সংসদ। তিনি বলেন, ‘আমি এখানকার সাংসদ। আপনাদের থেকে নিয়ম আমি ভাল বুঝি। এটা (পরিচয়পত্র) দেখার এক্তিয়ার আপনাদের নেই। যতটুকু দায়িত্ব আছে আপনাদের, তার বেশি কিছু করার দরকার নেই। চেষ্টা করবেন না। সেখানে গুলি চালিয়ে দিয়েছেন। মনে রাখবেন, এখানে শীতলকুচি করা যাবে না।

​কেন্দ্রীয় বাহিনীর এক জওয়ানের সঙ্গে এভাবে তর্কে জড়িয়ে পড়েন বারাসতের তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার। এরপর তিনি বুথে ঢোকেন ভোট দিতে। সেখানে তিনি দলের এজেন্টকে বলেন, ওদের (কেন্দ্রীয় বাহিনীর) পরিচয়পত্র দেখার অধিকার নেই। ওরা বাড়াবাড়ি করছে। এটা ওরা করতে পারে না।

অন্যদিকে, আবারও গুলি চালানোর অভিযোগ উঠল কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে। উত্তর ২৪ পরগনার দেগঙ্গায় ২১৫ নম্বর বুথে বিধি ভেঙে হওয়া জমায়েত হঠাতে কেন্দ্রীয় বাহিনী শূন্যে গুলি চালায় বলে জানা গিয়েছে। ঘটনায় কেউ হতাহত না হলেও এলাকায় উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। জেলা প্রশাসনের কাছ থেকে ঘটনার রিপোর্ট তলব করেছে নির্বাচন কমিশন। যদিও কোনও গুলি চলেনি বলে দাবি করেছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। কিন্তু, আইএসএফ-এর দাবি, বেআইনি জমায়েত হঠাতে গুলি চালানোর কথা বললেও বুথ থেকে অনেকটা দূরে ছিলেন তাদের কর্মীরা। সেই সময় বাহিনী আচমকা গুলি চালায় বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here