kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, আলিপুরদুয়ার: নাবালিকা মেয়েকে এক তৃণমূল নেতার বাড়িতে পরিচারিকার কাজে লাগিয়ে বাবা-মা গিয়েছিলেন নেপালে কাজ করতে। চার বছর ধরে ওই পরিবারে কাজ করছিল নাবালিকা মেয়েটি। গৃহকর্তা তৃণমূল নেতা লাগাতার নাবালিকাকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। যার ফলে আদিবাসী ওই নাবালিকা অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। পরে তার গর্ভপাত করানো হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। ন্যক্কারজনক এই ঘটনাটি ঘটেছে আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট বীরপাড়া ব্লকের খয়েরবাড়ি এলাকায়। খয়েরবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতে তৃণমূলের উপপ্রধান প্রদীপ সূত্রধরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা।

জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ওই নাবালিকা মাদারিহাট থানায় তার গৃহকর্তা প্রদীপ সূত্রধরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করে। থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে জানতে পেরে এলাকা থেকে চম্পট দিয়েছে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা প্রদীপ সূত্রধর। যদিও অজ্ঞাতবাস থেকে মোবাইল মারফত ওই নেতা জানিয়েছেন, তিনি নির্দোষ। তাকে ফাঁসানো হয়েছে।

এদিকে এই ঘটনা সামনে আসতেই আসরে নেমে পড়েছে বিজেপি। বিজেপি’র রাজ্য সহ সভাপতি রাজু ব্যানার্জি, আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা, মাদারিহাটের বিধায়ক মনোজ  টিগ্গা এলাকার বিজেপি সমর্থকদের নিয়ে বিক্ষোভ দেখান। বিজেপি’র অভিযোগ, তৃণমূলের আমলে রাজ্যে ধর্ষণের ঘটনা অনেক বেড়ে গিয়েছে। শাস্তি না হওয়ায় বারবার ঘটছে ধর্ষণের মতো ঘটনা। অভিযুক্ত ওই তৃণমূল নেতার উপযুক্ত শাস্তি দাবি করা হয় বিজেপির তরফে।

এই ঘটনা প্রসঙ্গে তৃণমূলের আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী বলেন, যার বিরুদ্ধে এই ধরনের অভিযোগ উঠবে, তাকে প্রশ্রয় দেওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই। যদি কেউ অন্যায় করে দল তার দায় নেবে না। প্রশাসনকে বলা হয়েছে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য। পুলিশের তরফে এই ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। পলাতক অভিযুক্ত তৃণমূল নেতার সন্ধান চালাচ্ছে পুলিশ। এই ধর্ষনের ঘটনা নিয়ে আলিপুরদুয়ারে বিজেপি ও তৃণমূলের রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়ে গিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here