kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, বীরভূম: এক তৃণমূলকর্মীর রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের খয়রাশোল থানার পাঁচড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের রানিপাথর এলাকায়। পরিবারের অভিযোগ, বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন করা হয়েছে। ঘটনার তদন্তে খয়রাশোল থানার পুলিশ। মৃতদেহটি ময়না তদন্তের জন্য সিউড়ি সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নিহত তৃণমূল কর্মীর নাম শিশির বাউড়ি (৪৫)। বাড়ি খয়রাশোল থানার আমাজোলা গ্রামে। ওই তৃণমূল কর্মীর শনিবার সকালে গুলিবিদ্ধ রক্তাক্ত মৃতদেহ পার্শ্ববর্তী রানিপাথর গ্রামের সুরিপুকুর পাড় থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরিবারের দাবি, গত শুক্রবার রাতে রানিপাথর গ্রামের কয়েকজন তাকে ডেকে নিয়ে যায়। সারারাত পেরিয়ে সকাল হয়ে গেলেও শিশিরবাবু বাড়ি না ফেরায় পরিবারের লোকজন খোঁজখবর শুরু করেন।

প্রথমে তারা শিশিরবাবুকে যারা ডেকে নিয়ে গিয়েছিল তাদের কাছে গিয়ে খোঁজ করেন। যদিও তারা কোনও সদুত্তর দিতে পারেনি। এরপরই অন্যান্য গ্রামবাসীর মাধ্যমে পরিবারের লোকজন জানতে পারেন, ওই পুকুরপাড়ে তার মৃতদেহ পড়ে আছে। ঘটনার খবর যায় খয়রাশোল থানায়। পরিবারের লোকজন ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেন শিশির বাউড়ির মাথার বাঁ দিকে গভীর ক্ষতচিহ্ন। রক্তে ভেসে যাচ্ছে গোটা এলাকা।

প্রাথমিক অনুমান, গুলি করে খুন করা হয়েছে তাকে। বছর খানেক আগে বিজেপি ছেড়ে তিনি তৃণমূল কংগ্রেস যোগ দিয়েছিলেন। খুনের কারণ নিয়ে ধন্দে পুলিশ থেকে পরিবারের লোকজন। পরিবারের পক্ষ থেকে খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here