নিজস্ব প্রতিবেদক, কোচবিহার: তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ অব্যাহত কোচবিহারের ভেটাগুড়িতে। বুধবার রাতে অনন্ত বর্মন নামে এক তৃণমূল কর্মীকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। তৃণমূলের দাবি, ভেটাগুড়ি বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে বিজেপি’র গুন্ডা বাহিনী তুলে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করে অনন্ত বর্মনকে‌। যদিও বিজেপি এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তৃণমূলের তরফে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলে পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করছে।

এবিষয়ে তৃণমূলের দিনহাটা ১ নম্বর ব্লকের প্রাক্তন সভাপতি তথা বর্তমান আহ্বায়ক নুর আলম হোসেন বলেন, সিংঙ্গিজানি ভেটাগুড়ি এলাকার অনন্ত বর্মন ও তার আত্মীয়-সহ‌ ভেটাগুড়ি বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। সেই সময় বিজেপিতে আশ্রিত গুন্ডা বাহিনী অনন্ত বর্মন তাঁর আত্মীয়কে ভেটাগুড়ি চৌপথী থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করে। অনন্ত বর্মনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার মাথা ফেটে গিয়েছে। পা ভেঙে গিয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসক তাঁকে কোচবিহার স্থানান্তরিত করেন। তিনি এখন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন।

এদিকে, তাদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামানিক। তাঁর পাল্টা অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেস শুধু ভেটাগুড়ি নয়, দিনহাটা এলাকায় একটা সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরি করে রেখেছে। তারা পুলিশকে কাজে লাগিয়ে জোর করে বিজেপি’র পঞ্চায়েত সদস্যদের তৃণমূলে যোগদান করাচ্ছেন। আর কে কার নেতৃত্বে কাকে যোগদান করাতে পারবে, তা নিয়ে তাদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে কারণেই এই ফল হয়েছে। তাদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে বিজেপি’র উপর চাপিয়ে দিচ্ছে তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here