ডেস্ক: বিশ্ব রাজনীতিতে নয়া সমীকরণের শুরু?

বিশ্বের এক নম্বর দেশকে পরমাণু বোমা মেরে উড়িয়ে দেওয়ার শাসানি দিয়েছিলেন উত্তর কোরিয়ার স্বৈরাচারী শাসক কিম জং উন৷ তার সেই হুমকির পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে তাঁদের সবক শেখানোর হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন  বিশ্বের এক নম্বর দেশের প্রধান৷ হুমকি-পাল্টা হুমকির জেরে  একেবারে যুদ্ধ লাগে লাগে অবস্থা৷ কিন্তু তারপরেই অভাবনীয় ঘটনা৷ যুদ্ধের ময়দান ছেড়ে আলোচনা টেবিলে বসার প্রস্তুতি দুই শত্রুদেশের মধ্যে৷  একজন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ অন্যজন কিম জং উন, যা জেনে তামাম বিশ্ব রীতিমতো অবাক ৷

রবিবার উত্তর কোরিয়া প্রশাসন জানিয়েছে, তারা ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে সরাসরি আলোচনায় বসতে ইচ্ছুক৷ এপ্রিল মাসের শেষের দিকে হতে পারে সেই বহু প্রতীক্ষিত,হাই প্রোফাইল আলোচনা৷ ফলে গত কয়েক মাস ধরে দুই দেশের মধ্যে পরমাণু হামলা নিয়ে যে উত্তেজনা চলছিল, তার ইতি ঘটতে পারে বলেই মনে করছে কূটনৈতিক মহল৷ সেইসঙ্গে শুরু হতে পারে নয়া সমীকরণের৷ উত্তর কোরিয়া প্রশাসন জানিয়েছে, মার্কিন প্রশাসন  কিম উন জংয়ের আলোচনায় বসা নিয়ে রাজি হওয়ার কথা স্বীকার করেছে৷ গত মাসে দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত আমেরিকা সফরের সময় হোয়াইট হাউসে কিমের হয়ে আলোচনার আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন৷ ট্রাম্প আর দ্বিতীয়বার ভাবেননি৷ সঙ্গেসঙ্গে  হ্যাঁ করে দেন৷ ওয়াল স্ট্রিট জার্নালই প্রথম এই ব্রেকিং নিউজ প্রকাশ করে৷ তারা জানিয়েছিল আলোচনায় বসা নিয়ে  কিম জং উন আমেরিকার প্রস্তাবে রাজি হয়েছেন৷

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here