kolkata news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সংক্রমণ প্রতিরোধী পদার্থ (disinfectant) ও সূর্যের আলো ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে করোনাভাইরাস সংক্রামিত ব্যক্তির শরীরে প্রবেশ করিয়ে দিলে রোগীর সুস্থ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সাংবাদিকদের কাছে বলা ট্রাম্পের এই যুগান্তকারী আবিষ্কারে চোখ কপালে উঠেছে আমেরিকার স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের। সূর্যালোক ও বাড়িতে তৈরি সংক্রমণ প্রতিরোধী পদার্থের কথা জানার পর ট্রাম্প এই উপদেশটি বিতরণ করেন।

হোমল্যান্ডের সিকিউরিটিস সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের প্রধান বিল ব্রায়ান তার একটি গবেষণার উপস্থাপনায় দেখান যে উষ্ণ ও আর্দ্র আবহাওয়া করোনাভাইরাসের আয়ু অর্ধেক করে দেয়। সূর্যালোক ভাইরাসকে দ্রুত শেষ করে দেয় বলে মন্তব্য করেন ব্রায়ান। ব্রায়ানের এই গবেষণার কথা জানার পর প্রেসিডেন্ট গভীর ভাবে চিন্তিত হয়ে ভাবতে থাকেন সূর্যের আলো কী ভাবে মানুষের শরীরের ভেতরে প্রবেশ করানো যায়। এরপরই তিনি অন্ধকারের মধ্যে আলো খুঁজে পান। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বিশেষজ্ঞদের উচিত এমন কোনও পদ্ধতি আবিষ্কার করা যার মাধ্যমে সূর্যের আলো ও সংক্রামক প্রতিরোধী দ্রব্য মানুষের শরীরে ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে প্রবেশ করিয়ে দেওয়া যায়।

বিল ব্রায়ানের সঙ্গে কথোপকথনের সময় প্রেসিডেন্ট বলেন, যে গবেষকরা নিশ্চয়ই তীব্র শক্তিশালী আলো শরীরের মধ্যে প্রবেশ করানোর চেষ্টা করছেন। এছাড়াও যেহেতু ডিসইনফেকটেন্ট বা সংক্রামক প্রতিরোধী দ্রব্য ১ মিনিটে ভাইরাসকে মেরে ফেলে সেহেতু যদি সংক্রামিতের শরীরে সেই দ্রব্য প্রবেশ করিয়ে দেওয়া যায় তাহলে সেটা ফুসফুসে পৌঁছে যাবে। এবং ফুসফুসে বাসা বাঁধা কোভিড–১৯ নিমেষে ধ্বংস হয়ে যাবে। বিষয়টি খুব আগ্রহোদ্দীপক বলে মন্তব্য করেন প্রেসিডেন্ট। ব্রায়ান অবশ্য বলেন সেরকম কিছু ভাবা হয়নি।

ডোনাল্ড ট্রাম্প সবসময়ই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেন করোনাভাইরাস ধ্বংসকারী কোনও ইতিবাচক সংবাদের জন্য। সূর্যের আলোয় কোভিড–১৯ ভাইরাস ধ্বংস হয় এই খবরে উৎসাহিত হয়ে যদি মানুষ রাস্তায় বেরিয়ে পড়ে তাহলে সেটা বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে কিনা প্রশ্ন করা হলে প্রেসিডেন্ট বলেন, ”আমার মনে হয় মানুষ সূর্যের আলো পছন্দ করে, আর তাতে যদি কোনও ফল হয় তাহলে তো খুবই ভালো।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here