jared kushnar
নোবেল শান্ত পুরস্কারের জন্য মনোনীত ট্রাম্প-জামাই কুশনার

মহানগর ডেস্ক: সময়টা মোটেও ভালো যাচ্ছে না প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। তবে সেই খারাপ সময়ের মধ্যে সুখবর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্য। নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মননীত হলেন ট্রাম্পের জামাই জারেড কুশনার। মধ্যপ্রাচ্যে আরব উপকূলের দেশগুলোর সঙ্গে ইজরায়েলের শান্তি স্থাপনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন জারেড কুশনার। সেই কারণেইই নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য তিনি মনোনীত হয়েছেন। তাঁর ডেপুটি বারকিউভিটসও নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

স্বাভাবিকভাবেই নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হওয়ার জন্য নিজেকে সম্মানিত বোধ করছেন। এক বিবৃতিতে তিনি নিজের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। ট্রাম্প জামানায় তাঁর পরামর্শে আরব দেশগুলোর সঙ্গে ইজরায়েলের শান্তি চুক্তি হয়। মূলত ইজরায়েলের সঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরশাহি, বাহরিন, সুদান ও মরক্কোর এই চুক্তি হয়। এই চুক্তিকে মধ্যপ্রাচ্যে গত ২৫ বছরে সব গুরুত্বপূর্ণ কূটনৈতিক চুক্তি হিসেবে ধরা হয়। মার্কিন আইনজীবী ডেরশোভিটসই এই চুক্তির কারণেই নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য জারেড কুশনার ও তাঁর ডেপুটি বারকিউভিটসের নাম মনোনয়নের জন্য পাঠান। হার্ভার্ড আইন স্কুলের অধ্যাপক হিসেবে তিনি এই মনোনয়ন দিতে পারেন।

তবে ট্রাম্পের জামানায় যে সব নিরাপত্তা চুক্তি হয়েছিল, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন তা খুঁটিয়ে পর্যবেক্ষণ করবে বলেই মনে করা হচ্ছে। তারমধ্যে সংযুক্ত আরব আমির শাহি ও সৌদি আরবের সঙ্গে করা চুক্তি রয়েছে বলেও জানা গিয়েছে।

চলতি বছর নোবেল শান্তির জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন রাশিয়ার বিরোধী নেতা অ্যালেক্সি নাভালনি, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও জলবায়ু সংক্রান্ত প্রচারক গ্রেটা থুনবার্গ। এখন দেখার বিষয় থুনবার্গ বা নাভালনির মতো শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বীকে হারিয়ে জারেড কুশনার শান্তির জন্য নোবেল পুরস্কার জিততে পারেন কি না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here