kolkata news

Highlights

  • পাঁচ বছর আগে এক নাবালিকাকে খুনের পর ধর্ষণের ঘটনায় দু’জনকে দোষী সাব‍্যস্ত করল চুঁচুড়া আদালত
  • আগামী ২৭ জানুয়ারি দোষীদের সাজা ঘোষণা হবে
  • ঘটনায় আরও এক অভিযুক্তের জুভেইনাল কোর্টে বিচার চলছে

নিজস্ব প্রতিনিধি, হুগলি: পাঁচ বছর আগে এক নাবালিকাকে খুনের পর ধর্ষণের ঘটনায় দু’জনকে দোষী সাব‍্যস্ত করল চুঁচুড়া আদালত। আগামী ২৭ জানুয়ারি দোষীদের সাজা ঘোষণা হবে। ঘটনায় আরও এক অভিযুক্তের জুভেইনাল কোর্টে বিচার চলছে।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ১২ ডিসেম্বর হুগলির বলাগড় থানার জিরাটের ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী গৃহশিক্ষিকার কাছে থেকে পড়ে সাইকেলে চেপে ফেরার পথে নিখোঁজ হয়ে যায়। তিন লাখ টাকা মুক্তিপণ চেয়ে ছাত্রীর বাবার কাছে ফোন আসে। ভয়ে পুলিশের দারস্থ হয়ে অভিযোগ করে ছাত্রীর পরিবার। তদন্তে নেমে তিনজনকে গ্ৰেফতার করে পুলিশ। তিনজনের নাম গৌরব মণ্ডল ওরফে শানু, কৌশিক মালিক ও স্বরূপ মজুমদার।

অপহরণের পর ওই ছাত্রী চেঁচামেচি করায় তাকে গলা টিপে খুন করে অভিযুক্তরা। মৃত্যুর পর নাবালিকার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করে অভিযুক্তরা। পরে তারা বস্তাবন্দি করে গঙ্গার চরে পুঁতে দেয় নাবালিকার দেহ। ১৪ তারিখ স্থানীয় একটি ইট ভাটার পেছনে গঙ্গার পারে মাটি খুঁড়ে ছাত্রীর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পাঁচ বছর পর সেই ঘটনার নিষ্পত্তি হল আজ। চুঁচু্ড়া আদালতের অ্যাডিশনাল ডিস্ট্রিক্ট সেশন জজ (সেকেন্ড কোর্ট) মানসরঞ্জন সান্যাল অভিযুক্ত গৌরব মণ্ডল ও কৌশিক মালিককে দোষী সাব্যস্ত করেন। স্বরূপ মজুমদারের বিচার জুভেইনাল আদালতে বিচারাধীন। আগামী ২৭ জানুয়ারি দোষীদের সাজা ঘোষণা হবে।

চুঁচু্ড়া আদালতের আইনজীবী সুব্রত গুছাইত জানান, ধৃতদের ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৬৩, ৩৬৪/এ, ৩০২, ৩৪ ও ৬ পকসো ধারায় দোষী সাব‍্যস্ত করেছে আদালত। পরিবারের এক সদস‍্য আদালত চত্বরে বলেন, কতটা বিকৃত মানসিকতা হলে একজন নাবালিকাকে মেরে তার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করে অভিযুক্তরা। এদের ফাঁসি হওয়া উচিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here