kolkata news
প্রস্তুত পুলিশ

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: কৃষক আন্দোলনের জেরে গতকাল রাজধানীর বুকে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে। পুলিশ-আন্দোলনকারীদের সংঘর্ষে অভূতপূর্ব পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। মিছিল ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশকে লাঠিচার্জ ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়তে হয়। এরই মধ্যে পড়ে এক আন্দোলনকারীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। তবে ট্র্যাক্টর চাপা পড়ে ওই আন্দোলনকারীর মৃত্যু হয় বলে পুলিশ দাবি করলেও আন্দোলনকারীরা জানান পুলিশের মারে মৃত্যু হয়েছে ওই আন্দোলনকারীর।

প্রজাতন্ত্র দিবস দিল্লির এই ঘটনায় গোটা দেশের মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। অনেকে কৃষকদের এই সক্রিয়তাকে ভাল চোখে দেখেননি। কোনও কোনও মহল থেকে আবার কৃষকদের আন্দোলনের পেছনে কোনও ‘অদৃশ্য শক্তির’ হাত আছে বলে দাবি করা হয়। সব মিলিয়ে কালকের এই মারমুখী আন্দোলনের জেরে কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যান আন্দোলনকারীরা।

এরইমধ্যে আজ চলতে থাকা কৃষক আন্দোলন থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিল দুটি কৃষক সংগঠন। রাষ্ট্রীয় কিসান মজদুর সংগঠন ও ভারতীয় কিসান ইউনিয়ন এই আন্দোলন থেকে তাদের সরিয়ে নিয়েছে। তাদের দাবি, আন্দোলনের ফলে গতকাল দিল্লিতে যে ঘটনা ঘটে, তাতে আর তাদের এই প্রতিবাদে অংশ নেওয়া সম্ভব নয়। ভিএম  সিং নামে এক কৃষক নেতা বলেন, ‘আমরা কৃষি আইন বিরোধী আন্দোলন থেকে সরে যাচ্ছি। তবে কৃষকদের অধিকার রক্ষার যে লড়াই চলছে তাতে আমরা থাকব।

অন্যদিকে, ভারতীয় কিসান ইউনিয়নের প্রধান ভানু প্রতাপ সিং সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘গতকাল দিল্লিতে যা হয়েছে তাতে আমি মর্মাহত। তার জেরে দীর্ঘদিন ধরে চলা এই আন্দোলন থেকে আমরা সরে যাচ্ছি। উল্লেখ্য, পাঞ্জাব ও হরিয়ানার বেশ কয়েকটি কৃষক সংগঠন মিলিত ভাবে গত ৫৮ দিন ধরে দিল্লির বুকে এই আন্দোলন চালিয়ে আসছে। কিন্তু, গত কালকের ঘটনায় কৃষক সংগঠনের ঐক্যে কিছুটা হলেও ফাটল ধরিয়ে দিল। দুটি কৃষক সংগঠন নিজেদের সরিয়ে নেওয়ায় চলতে থাকা আন্দোলনে ঝাঁজ কমে যাবে কিনা, তা এখনই বলা যায় না। তবে গতকালের ঘটনায় আন্দোলনকারীদের মধ্যে যে ভিন্ন মত সৃষ্টি হয়েছে, তা বলাই যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here