kolkata news
Parul

মহানগর ডেস্ক: ভারতীয় জনতা পার্টির ইতিহাসে এই প্রথম। বাংলা থেকে দু’জনকে দেয়া হল সর্বভারতীয় যুব মোর্চার পদ। উভয়টিই দেওয়া হয়েছে মোর্চার গুরুত্বপূর্ণ আসন।

ads

বিধানসভা নির্বাচনে প্রত্যাশিত ফল না করলেও, রাজ্যের উত্তরে নিজেদের আধিপত্য বজায় রেখেছে বিজেপি। সে কারণেই এই পুরস্কার বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ। সর্বভারতীয় যুব মোর্চার  সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মনোনীত হয়েছেন দার্জিলিংয়ের সাংসদ রাজু বিস্তা। এছাড়াও দুবরাজপুরের বিধায়ক শ্রী অনুপ সাহাকে ভারতীয় জনতা যুবমোর্চার সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি করা হয়েছে।

দলের সর্বভারতীয় দিক থেকে পশ্চিমবঙ্গের যুব মোর্চার গুরুত্ব রয়েছে বরাবরই। এর আগে ১৯৮০-১৯৮২ সালে যুব মোর্চার সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি ছিলেন বিদ্যুৎ দত্ত। ১৯৮২-১৯৮৪ সালে যুব মোর্চার সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক ছিলেন উৎপলকান্তি চক্রবর্তী। ১৯৯০-১৯৯৩ সাল পর্যন্ত সর্বভারতীয় সম্পাদক ও তারপর ১৯৯৩- ১৯৯৫ পর্যন্ত সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি ছিলেন তাপস চট্টোপাধ্যায়।

রাজু এবং অনুপকে দায়িত্ব দেওয়ার পিছনে অন্য কারণ দেখছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের কেউ কেউ। তাঁদের মতে পাহাড়ে নিজেদের পায়ের তলার জমি আরো শক্ত করে নিতে চাইছে গেরুয়া শিবির। সম্প্রতি বেসুরো গেয়েছেন সৌমিত্র খাঁ। যে সমস্ত নেতাদের মতিগতি বোঝা দায় তাদের উপর নির্ভরশীলতা ক্রমে কমিয়ে কমিয়ে আনতে চাইছে দল। পরিবর্তে যারা দলের সঙ্গে রয়েছেন তাদেরকেই দেওয়া হচ্ছে গুরুত্ব, এমনটাই মনে করছেন বিশ্লেষকদের একাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here