দুই জেলায় খুন দুই তৃণমূলকর্মী, কাঠগড়ায় ফের সেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, বারাসাত ও ডোমকল: ফের রাজনৈতিক দ্বন্দ্বে উত্তপ্ত হয়ে ওঠার সম্ভাবনা দেখা দিল আমডাঙায়। কারণ সেখানে আবারও খুন হলেন এক সক্রিয় তৃনমূল কর্মী। মৃতের নাম মোস্তফা আলী(৩২)। গত দুই দিন ধরে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না বলে তার পরিবারের দাবি। সোমবার সকালে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার আমডাঙা থানার আটঘরা এলাকায় স্থানীয় একটি পুকুর থেকে উদ্ধার হয় মোস্তাফার মৃতদেহ। স্থানীয় মৎস্যজীবীরা এদিন ওই পুকুরে মাছ ধরার জাল ফেললে সেই মাছের জালে ওঠে ওই মোস্তাফার মৃতদেহ। আমডাঙা থানার বরগাছিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় তার বাড়ি বলে জানা গেছে। বরগাছিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার একজন সক্রিয় তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী হিসেবে পরিচিত ছিল মোস্তাফা। তার দুই সন্তানও রয়েছে। পেশায় চাষী মোস্তাফাকে সিপিএম ও বিজেপি ষড়যন্ত্র করে খুন করেছে বলে অভিযোগ স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক রফিকুর রহমানের। রফিকুর সাহেব এই খুনের ঘটনায় পুলিশের ভূমিকায় অনাস্থা প্রকাশ করার পাশপাশি তাদের সমালোচনাও করেন। তবে বিরোধী সিপিএম ও বিজেপির দাবি গোষ্ঠীকোন্দলের জেরেই খুন হয়েছেন মোস্তাফা।

অন্যদিকে মুর্শিদাবাদের জলঙ্গীতে দিনদুপুরে খুন হয়ে গেলেন এক তৃনমুল কংগ্রেস কর্মী। আর তার কারণ হিসাবে উঠে এল তৃণমূলের চিরাচরিত গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। জানা গিয়েছে বোমার আঘাতে মৃত্যু হয় হামিদুল মন্ডল(৩২) নামে ওই তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী। তার বাড়ি জলঙ্গী ব্লকের ঘোষপাড়া গ্রামে। সোমবার দুপুরে দুষ্কৃতিদের ছোঁড়া বোমার আঘাতে তার মৃত্যু হয়েছে। এই খুনের ঘটনার জলঙ্গীতে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। জলঙ্গী ব্লক সভাপতি(উঃ) তহিরুদ্দিন মন্ডলের দাবি হামিদুল তৃণমূল কংগ্রেসের সক্রিয় কর্মী। সোমবার দুপুরে ব্লকের জোড়তলা এলাকায় বিগ্রেডের প্রস্তুতি সভার আয়োজন করেছিল জলঙ্গী ব্লক(উঃ)নেতৃত্ব। হামিদুল বাড়ি বাড়ি গিয়ে দলীয় কর্মীদের সেই সভায় যাওয়ার জন্য ডাকতে গিয়েছিল। সেই সময় দুষ্কৃতিকারীরা এলোপাথাড়ি বোমা ছুঁড়তে থাকে। বোমার আঘাতে গুরুতর জখম হন হামিদুল। প্রথমে তাকে সাদিখানদিয়াড় প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তার মৃত্যু হয়েছে। মৃতের পরিবারের লোকজনের অভিযোগ ঘোষপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান ফিরোজ সেখের দলবল এই ঘটনা ঘটিয়েছে। ঘটনার পর থেকেই এলাকা ছাড়া ফিরোজ সেখ ও তার অনুগামীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here