kolkata news
Highlights

  • হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে পালালেন ভর্তি থাকা দুই যুবক
  • শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূম জেলা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে
  • পুলিশ-প্রশাসনের তৎপরতার পর স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের পক্ষ থেকে ওই দুই যুবক হাসপাতালে ভর্তি করার ব্যবস্থা করা হয়েছে


নিজস্ব প্রতিনিধি, বীরভূম:
হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে পালালেন ভর্তি থাকা দুই যুবক। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূম জেলা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে। পুলিশ-প্রশাসনের তৎপরতার পর স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের পক্ষ থেকে ওই দুই যুবক হাসপাতালে ভর্তি করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, চন্দ্রপুর থানার পাতাডাঙা এলাকার বাসিন্দা গুজরাট থেকে আসা আট যুবককে সিউড়ি সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে আনা হয় স্বাস্থ্য পরীক্ষা জন্য। এদের মধ্যে ভর্তি থাকা দুই যুবক সকাল বেলায় পালিয়ে যান আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে। এদিন সকালে স্বাস্থ্যকর্মীর ওয়ার্ডে গিয়ে দেখেন শৌচকর্ম করতে যাওয়ার নাম করে ওই দুই যুবক পালিয়ে যান। তৎক্ষণাৎ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ও পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়।

বিষয়টি জানাজানি হলে ওই দুই যুবকের খোঁজ শুরু হয়। চন্দ্রপুর এলাকার স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব বিষয়টি জানার পর সঙ্গে সঙ্গে ওই দুই যুবককে ফের হাসপাতালে নিয়ে আসেন। গত বৃহস্পতিবার ওই যুবকরা আসানসোলে নামেন ট্রেন থেকে। পরে গ্রামে ফিরে আসেন। প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতর ওই সব যুবককে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে করোনা ভাইরাসের কোনও সংক্রমণ তাদের শরীরে রয়েছে কিনা, দেখার জন্য সিউড়ি সুপার সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে নিয়ে আসে রাতেই। সকলের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার সময় এদের মধ্যে দু’জনের জ্বর ও সর্দি থাকায় আইসোলেশন ওয়ার্ডে রেখে দেওয়া হয়। এদিন সকালে শৌচকর্ম করতে যাওয়ার নাম করে সেখান থেকেই ভয়ে তারা চম্পট দেয়। ঘটনার পর থেকেই আইসোলেশন ওয়ার্ডের নিরাপত্তা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

বীরভূমের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক হিমাদ্রি আড়ি বলেন, ‘আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে দুই যুবক পালিয়ে গিয়েছিল। পুলিশ, প্রশাসন ও স্থানীয় মানুষদের তৎপরতায় তাদেরকে ফের হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে চিকিৎসার জন্য। তবে সাধারণ মানুষের আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। স্বাস্থ্য দফতর যে কোনও পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে প্রস্তুত রয়েছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here