news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: চলতি মাসের মাঝামাঝি মধ্যপ্রদেশের পালঘরে উন্মত্ত জনতার মারে প্রাণ হারিয়েছিলেন দুই সাধু সহ তিনজন। তা নিয়ে উত্তাল হয়েছিল গোটা দেশ। শুরু থেকেই যথাযথ তদন্তের আশ্বাস দিলেও হিন্দুত্ববাদীদের কড়া আক্রমণের মুখে পড়েছিলেন শিবসেনা প্রধান তথা মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। খোদ উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ফোন করেন উদ্ধবকে।

সেই ঘটনার দুই সপ্তাহ পর খোদ যোগীরাজ্যের বুলন্দশহরে খুন হলেন দুই সন্ন্যাসী। আর এর পরেই পাল্টা যোগী আদিত্যনাথকে ফোন করলেন উদ্ধব ঠাকরে। সাধুদের হত্যাকারীকে তাড়াতাড়ি শাস্তি দেওয়ার পাশাপাশি এই ঘটনায় যাতে ধর্মীয় রঙ না লাগানো হয়, সেই কথাও যোগীকে বলেন তিনি।

এই প্রসঙ্গে শিবসেনা মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত ট্যুইটারে জানান, ‘অত্যন্ত নিন্দনীয় ও অমানবিক ঘটনা। উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরে দুই সাধুকে মন্দিরের মধ্যে খুন করা হয়েছে। আমরা সবাইকে অনুরোধ করবো যাতে এতে সাম্প্রদায়িক রঙ না খোঁজেন। দেশ এখন করোনার বিরুদ্ধে লড়ছে। আমাদের আশা যোগী আদিত্যনাথ দোষীকে উপযুক্ত শাস্তি দেবেন।’

তিনি আরও জানান, ‘যোগী আদিত্যনাথকে উদ্ধব ঠাকরে ফোন করেছিলেন ও এই ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। এই ধরণের অমানুষিক কাজে আমাদের বিভেদ করা উচিত নয়। বরং এক হয়ে দোষীকে শাস্তি দেওয়া উচিত।’

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে ওই সাধুদের চিমটা চুরি করেছিল খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত। সেই কথা জানতে পেরে তাকে কথা শোনান ওই সাধুরা। তারই প্রতিশোধ নিতে হয়তো এই খুন, অনুমান পুলিশের। তবে শুধুমাত্র এই বিষয়টিকেই নজর না দিয়ে অন্য কোন বিষয় রয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। স্থানীয়রা জানান, সোমবার রাতে গ্রামের একটি শিব মন্দিরে ঘুমোচ্ছিলেন ওই দুই সাধু। তখনই আচমকা তাদের ওপর হামলা চালায় ওই অভিযুক্ত। পরদিন সকালে দুজনের লাশ দেখতে পেয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here