kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: শচীন পাইলটের গোঁসার জেরে এখনও সংকটমুক্ত নয় রাজস্থানের কংগ্রেস সরকার। রাজ্যের উপমুখ্যমন্ত্রী কী করতে চাইছেন, এখন সাফ নয়। তিনি বিজেপিতে যোগ দেবেন, নাকি কংগ্রেসেই থাকবেন, কিছুই ঝেড়ে কাশছেন না। ফলে ভ্রান্ত বাড়ছে। এই কর্ণাটক ও মধ্যপ্রদেশের ন্যায়ে এই সংকটের জন্য কংগ্রেস অবশ্য বিজেপিকেই দোষ দিচ্ছে। তবে বিজেপি পাল্টা বলছে, তাদের নিজের গলদেই এমনটা হচ্ছে। বিজেপি নেত্রী উমা ভারতী যেমন এই পরিস্থিতির জন্য সরাসরি কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গান্ধীর দিকে আঙুল তুলেছেন।

উমা ভারতি দাবি করেছেন, রাহুল গান্ধী আসলে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া ও শচীন পাইলটদের মতো তরুণ নেতাদের ঈর্ষা করেন। রাহুলের এই ঈর্ষাই কংগ্রেসের ধ্বংস ডেকে আনছে। শুধু তাই নয়, শচীন পাইলটকে খোলা মনে বিজেপিতে স্বাগতও জানিয়েছেন তিনি। প্রসঙ্গত, এই প্রথম বিজেপির কোনও কেন্দ্রীয় স্তরের মন্ত্রী সরাসরি দলে আমন্ত্রণ জানালেন রাজস্থানের তরুণ উপমুখ্যমন্ত্রীকে।

উমা ভারতী বলেছেন, ‘শচীন এবং জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া দু’জনেই যোগ্য মানুষ। আমার ভাইপোর মতো। শচীন যদি বিজেপিতে আসে তবে আমরা ভীষণ খুশি হব।’ প্রসঙ্গত, সিন্ধিয়া পরিবারের সঙ্গে উমা ভারতীর ওঠাবসা বহুদিন ধরেই। শচীনও আবার জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। ফলে উমা ভারতীর এই মন্তব্য থেকেও নতুন সমীকরণের ইঙ্গিত পাওয়া যেতে পারে।

অন্যদিকে ওয়েনাড় সাংসদের সমালোচনা করে উমা ভারতী আরও বলেন, ‘রাহুল গান্ধী মনে করেন যদি শচীনদের মতো নেতাদের সুযোগ দেওয়া হয় তবে ওঁর কথা আর কেউ ভাববে না। শচীন এবং সিন্ধিয়া দু’জনেই কংগ্রেসের যুব সম্প্রদায়ের নেতা হয়ে উঠবেন। তাই রাহুল সুযোগ দিতে চাইছেন না ওদের।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here