national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে দেশজুড়ে লাগু হয়েছে লকডাউন। দীর্ঘ লকডাউন এর জেরে কর্মহীন দেশের কয়েক কোটি মানুষ। জমানো অর্থ শেষ, পরিবারের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার সামর্থ্য নেই। যার জেরেই লকডাউন কে দোষী সাব্যস্ত করে ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করলেন উত্তরপ্রদেশের এক ব্যক্তি। এই ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ওই ব্যক্তির নাম বেনু প্রকাশ গুপ্ত। উত্তরপ্রদেশের লক্ষ্মীপুর খেড়ি জেলার বাসিন্দা তিনি। শাহাজানপুর জেলায় এক হোটেলে কাজ করতেন ওই ব্যক্তি। লকডাউন কর্মহীন করেছে তাকে। জমানো টাকা দিয়ে বাড়িতে চার সন্তান স্ত্রী ও অসুস্থ মায়ের দিন গুজরান চলছিল কোনওমতে। তবে জমানো অর্থ শেষ হওয়ার পর সরকারি রেশনে কোনোমতে চলছিল অর্ধাহার। তবে অসহায় পরিবারের জন্য কিছুই করতে না পেরে শেষমেষ রেললাইনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেন ৫০ বছর বয়সী বেনু। রেলের লাইন থেকে তার দেহ উদ্ধারের পর তার কাছ থেকে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করে।

সুইসাইড নোটে বেনু লিখেছেন, সরকারকে ধন্যবাদ চাল গম দেওয়ার জন্য। কিন্তু এটাই যথেষ্ট নয়।অর্থের অভাবে অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিস যেমন, বাচ্চার জন্য দুধ, চিনি, নুন, মায়ের ওষুধ কিছুই কিনতে পারছি না। আমার মা ভীষণ অসুস্থ, তার চিকিৎসার জন্য জেলা প্রশাসন কোনো সাহাজ্য করছে না। ওনার যন্ত্রনা চোখে দেখা যায় না। এই লকডাউন সব শেষ করে দিয়েছে। পরিবারের কষ্ট সহ্য করতে না পেরেই আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমি।

এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পরই নড়েচড়ে বসেছে সরকার। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। এ প্রসঙ্গে উত্তরপ্রদেশের লক্ষণ খেড়ির জেলাশাসক শৈলেন্দ্র কুমার সিং বলেন, গোটা ঘটনার তদন্ত চলছে। ওই ব্যক্তি তার রেশন কার্ডে চলতি মাসের সরকারি সমস্ত রেশন তুলেছেন। যদিও তার বাড়িতে জমানো কোন খাদ্যশস্য নেই। আমরা তার সুইসাইড নোটও উদ্ধার করেছি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here