kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিনিধি, হগলি: ডেঙ্গিতে একাধিক মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে যখন চিন্তিত শ্রীরামপুর, বৈদ্যবাটির বাসিন্দারা, তখন অজানা বিষাক্ত পোকার কামড়ে মৃত্যু হল এক গৃহবধূর। মৃতের নাম সুদীপা নন্দী(৩২)। বাড়ি বৈদ্যবাটির বৈদ্যপাড়া নিশীথ সেন সরণিতে। একটা পোকার কামড় এত বিষাক্ত হতে পারে, তা জেনে আতঙ্কিত এলাকার মানুষ। মৃত‍্যুর প্রকৃত কারণ খুঁজতে পরিবারের অনুরোধে ময়না তদন্ত করা হয় সুদীপার। ভিসেরা রিপোর্ট করতে পাঠানো হয়েছে।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, মৃত সুদীপার স্বামী সুজয় নন্দী সিআরপিএফ জওয়ান। কাশ্মীরে কর্মরত ছিলেন। কার্তিক পুজো উপলক্ষে গত ১৩ নভেম্বর কাশ্মীরে থেকে বাড়ি ফেরেন সুজয়। সকাল দশটা নাগাদ বাড়ি ফিরে মা-বাবা, স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে খাওয়া দাওয়া করে তিন বছরের ছেলে স্বস্তিককে নিয়ে শুয়ে পড়েন। সুজয় শুতে গেলে বাথরুমে স্নান করতে যান সুদীপা। তিনতলার বাথরুমে সেই সময় তার হাতের কবজিতে অজানা কোনও বিষাক্ত পোকা জাতীয় একটা কিছু কামড়ায়।

কিন্তু ঠিক কী কামড়ায়, তা বুঝতে পারেনি পরিবারের কেউ। কামড়ের পরই বিষক্রিয়া শুরু হয় সুদীপার হাতে। সঙ্গে সঙ্গে হাত ফুলে সবুজ হয়ে যায়। শ্রীরামপুর ওয়ালস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। রক্তবমি হওয়ায় সেখান থেকে কলকাতার পিজিতে পাঠিয়ে দেওয়া হয় তাকে। রক্ত এতটাই দূষিত হয়ে যায় যে, পিজিতে একাধিকবার রক্ত বদল করা হয় সুদীপার। মেডিক‍্যাল বোর্ড বসিয়েও ডাক্তাররা ওই গৃহবধূর শরীরে কীভাবে এত তড়াতাড়ি বিষক্রিয়া ঘটল, তা বুঝে উঠতে পারেননি। অবশেষে বুধবার মৃত্যু হয় সুদীপার।

কোনও অজানা পোকার কামড়, আর কী করেই-বা এত তাড়াতড়ি বিষক্রিয়া হল, তা বুঝতে পরিবারের অনুরোধে বুধবার সুদীপার দেহের ময়না তদন্ত করা হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ‍্যাবেলা যখন মৃতদেহ এলাকায় আসে তখন শোকের ছায়া নামে। এর আগে এরকম কোনও ঘটনা এলাকায় ঘটেনি। হঠাৎ করে সুদীপার মৃত্যুতে অজানা পোকার আতঙ্ক তাড়া করছে এলাকায় মানুষের মনে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here