ডেস্ক: গত কয়েকদিন ধরে ধর্ষণ কাণ্ডে উত্তাল যোগী রাজ্য উত্তরপ্রদেশ। এক বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে ওঠা ধর্ষণ মামলা, ও ধর্ষিতার বাবাকে পিটিয়ে মারার অপরাধে ওই বিজেপি বিধায়ক কূলদীপ সিং সেনগারের ভাই অতুল সিংহ সেনগারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। যদিও ঘটনার তদন্তে পুলিশি নিস্ক্রিয়তার অভিযোগ বারে বারে তুলেছে তরুণীর পরিবার। অবশেষে জানা গেল উন্নাও ধর্ষণ কাণ্ডের তদন্তভার গ্রহন করবে সিবিআই।

শুধু তাই নয়, চারিদিক থেকে চাপে পড়ে এতদিন ধরে ধিমে তালে চলা তদন্তের গতি একধাক্কায় বেড়ে গিয়েছে কয়েকগুণ। সিট গঠনের পর রাজ্যের কাছে যে তথ্য এসেছে তার ভিত্তিতে ওই বিধায়ক কূলদীপ সিংয়ের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়। চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে দুই চিকিৎসক ডি কে দ্বিবেদী ও প্রশান্ত উপাধ্যায়কেও সাসপেন্ড করা হয় এছাড়া আরও ৩ ডাক্তারের বিরুদ্ধে তদন্ত চালানো হচ্ছে। বারে বারে অভিযোগ করা সত্ত্বেও ওই তরুণীর অভিযোগ না নেওয়ায় সাসপেন্ড করা হয়েছে সফিপুর সার্কেল অফিসার কুনওয়ার বাহাদুর সিংকে।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের শাস্তির দাবীতে যোগীর বাসভবনের সামনে আত্মহত্যার চেষ্টা করে ওই তরুণীর পরিবার। অভিযোগ ছিল, গতবছর তাঁকে ধর্ষণ করেন উত্তরপ্রদেশের উন্নাওয়ের বিজেপি বিধায়ক কূলদীপ সিং সেনগার ও তাঁর সঙ্গিরা। সেনগার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলেও কোনও ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ। উল্টে পুলিশি পশ্রয়ে অভিযোগ দায়ের হওয়ার পর থেকে তাঁর পরিবারকে রীতিমত হুমকি ও তাঁর বাবাকে মারধোর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। তবে সেনগারের দাবি, তাঁকে ও তাঁর পরিবারকে বদনাম করতেই এইসব করছে ওই তরুণী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here