ডেস্ক: ‘নিজেরবেলা আঁটিসুটি, পরেরবেলা দাঁত কপাটি’! বাংলায় প্রচলিত একটি জনপ্রিয় প্রবাদ৷ অর্থাৎ, কোনও একটা জিনিস অন্য কেউ করলে আমরা তার সমলোচনা করতে ছাড়ি না৷ কিন্তু নিজে করলে দোষ নেই৷ প্রতিবেদনের শুরুটা কেন এমন হল? ফিরে যেতে হবে বছর ছয়-সাত আগে, ২০১১-১২ সালের ঘটনা৷ ২০১১ সালের ডিসেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার ডায়মন্ড হারবার মহকুমা এলাকার উস্থি, মগরাহাট,মন্দিরবাজার থানার বিভিন্ন গ্রামে বিষাক্ত মদ খেয়ে মৃত্য মিছিল শুরু হয়েছিল। ঘণ্টায় ঘণ্টায় বাড়তে থাকে মৃতের সংখ্যা। সরকারের হিসাবে মৃত্যু হয়েছে ১৭০জনের মত। বেসকরকারি মতে, এই সংখ্যা দুশোরও বেশি৷

প্রসঙ্গত, বিশ মদ কাণ্ডে মগরাহাট-সহ ওই সমস্ত এলাকার অনেক গরীব মানুষের হাসপাতালে যাওয়ার সামর্থ্যটুকুও ছিলো না। অভাবে বেঘোরে প্রাণ হারানো মানুষদের পরিবারের জন্য ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছিলেন সদ্য রাজ্যে ক্ষমতায় আসা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার৷ তাঁরা। যা নিয়ে সেই সময় কম রাজনীতি হয়নি৷ বিষ মদ কাণ্ডে মৃতদের পরিবার পিছু ২ লক্ষ টাকা ঘোষণার পর রাজ্য সরকারের মুণ্ডপাত করেছিল বিজেপি-সহ বিরোধী দলগুলি৷ বিষয়টি কলকাতা হাইকোর্ট পর্যন্ত গড়িয়েছিল৷ এরপর গঙ্গার বুক দিয়ে বয়ে গিয়েছে অনেক জল৷ ৭ বছর পর একই ঘটনার পুণরাবৃত্তি ঘটল৷ এবার অবশ্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাংলা নয়, ঘটনা বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশের৷ বিষমদ কাণ্ডে মৃতদের পরিবার পিছু একইভাবে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ ক্ষতিপূরণের অঙ্কটা সেই ২ লক্ষ টাকা৷ এবার কী বলবেন সমালোচকরা? আসলে ধর্মের কল বাতাসে নড়ে!

উল্লেখ্য, গত চব্বিশ ঘণ্টায় উত্তরপ্রদেশের কানপুরের মাতৌলি, মঘাইপুরা ও বনওয়ারপুরে বিষ মদ খেয়ে মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ১০ জনের। এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷ পুলিশ সূত্রে খবর, উত্তরপ্রদেশ জুড়ে একটি বিশেষ ব্র্যান্ডের দেশি মদ বিক্রি হয়। সেই ব্র্যাডের নাম ভাঙিয়েই তৈরি হয়েছিল এই বিষ মদ। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি এলাকায় তল্লাসি চালিয়েছে পুলিশ। একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতই কানপুরে বিষ মদ কাণ্ডে এবার মৃতদের পরিবার পিছু ২ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় জড়িত বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে বাকিদের খোঁজে তল্লাসিও শুরু হয়েছে। বিষ মদ কাণ্ডে এখনও পর্যন্ত ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে উত্তরপ্রদেশে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও বেশি৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here