ডেস্ক: টোল প্লাজার গৈরীকিকরণের পর এবার উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের নতুন দাবি। তিনি বলেছেন, আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় ও জামিয়া মিলিয়ায় দলিতদের জন্য সংরক্ষণের বিশেষ ব্যবস্থা রাখতে হবে। এইপরই সেখানকার ছাত্রছাত্রীদের কাছ থকে তাঁর কপালে জুটেছে আইন কানুন না জানার তকমা। ছাত্র সংগঠনগুলো তীব্র ভাবে যোগীর এই দাবির বিরোধিতা নেমেছে।

ইদানিং কালে বিজেপিকে বারবার দলিত বিরোধী আখ্যা দিয়েছে বিরোধী শিবির। এমত অবস্থায় সোমবার আদিত্যনাথ কনৌজে প্রাক্তন মন্ত্রী রামপ্রকাশ ত্রিপাঠীর বাৎসরিক উপলক্ষে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন। সেখনেই তিনি এই দাবি তুলেছেন। তিনি বলেছেন যারা বিজেপিকে দলিত বিরোধী আখ্যা দিচ্ছে তারা কেন এই সংরক্ষণের দাবিতে এগিয়ে আসছে না ? তাদের উচিত বিজেপির এই দাবিকে সমর্থন করা। পাশাপাশি তিনি বেনারস বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রসঙ্গ তুলে বলেন, এরা যদি পারে তবে জামিয়া মিলিয়া ও আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয় কেন বাদ যাবে। দুটোতেই সংরক্ষণের ব্যবস্থা থাকা উচিত। এমত অবস্থায় বিরোধীরা বলছে দলের প্রতি দলিত বিরোধী তকমা মুছতেই এমন পরিকল্পনা গেরুয়া সরকারের।

যোগীর বলেন সরকারের কাছে জাতপাত নির্বিশেষে সবাই সমান। কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকল্পের সুবিধা সকলেই নিতে পারে। তবে যোগীর এই দাবির পর থেকেই ছাত্র সংগঠনগুলিতে শুরু হয়েছে বিরোধিতা। গত বছর ভারতীয় জনতা পার্টি এই দুটি বিশ্ববিদ%8