ডেস্ক: গম চাষ করতে অস্বীকার করেছিলেন তিনি। ছিল আরও একটা দোষ, জাত ছিল দলিত। তাই মূত্রপান করতে বাধ্য করা হল কৃষককে। মারাত্মক এই অভিযোগ উঠেছে উত্তর প্রদেশের বাদুয়া অঞ্চল থেকে। পুলিশে আবার অভিযোগ দায়ের করতে গেলে এক সপ্তাহ অপেক্ষা করিয়ে রাখা হয় তাঁকে।

ন্যক্কারজনক এই ঘটনায় দায়ি করা হয়েছে গ্রামের মোড়ল স্থানীয় কয়েকজন ‘উচ্চশ্রেণি’র বৃদ্ধকে। বছর ৫০-এর এই কৃষক অভিযোগ জানিয়েছেন, তাঁকে কয়েকদিক ধরেই গম চাষ করতে বাধ্য করা হচ্ছিল। কিন্তু তাতে তিনি রাজি না হওয়ার গাছে হাত-পা বেঁধে প্রথমে অকথ্য অত্যাচার চালানো হয় তাঁর উপর। এরপর জোর করে তাঁকে মূত্রপান করতে বাধ্য হওয়া হয় বলে পুলিশকে জানিয়েছেন তিনি। জোর করে তাঁর গোঁফ টেনে উপড়ে ফেলার চেষ্টা করা হয় বলেও পুলিশকে দায়ের করা অভিযোগে জানিয়েছেন নির্যাতিত ওই কৃষক।

অন্যদিকে, এই পুরো ঘটনায় কাঠগড়ায় উঠেছে যোগীর প্রশাসন। কারণ ওই কৃষক যখন প্রথম হজরতপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করতে যান তখন তাঁর অভিযোগ গ্রহণ করাই হয়নি। জানা গিয়েছে গত সপ্তাহের সোমবার ওই নির্যাতিত কৃষক যখন পুলিশের দ্বারস্থ হতে যান তাঁকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। এরপর রবিবার তাঁর অভিযোগ গ্রহণ হওয়ার পর নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। এই ঘটনায় গাফিলতির জন্য হজরতপুর থানার ইন্সপেক্টরকে সাসপেন্ড করেছেন বাদুয়ার সুপারিনটেন্ডেন্ট।

পুলিশে অভিযোগ দায়ের হওয়ার পর থেকেই পলাতক বিজয় সিং ও শৈলেন্দ্র সিং নামের দুই অভিযুক্ত। ইতিমধ্যেই তাদের খুঁজতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here