ডেস্ক: আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে কৃষকদের কথা মাথায় রেখে বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যার মধ্যে অন্যতম হল ‘পিএম কৃষক সম্মান নিধি যোজনা’। এবার এই প্রকল্পের আওতায় থাকা এক কৃষক টাকা ফিরিয়ে দিয়ে আত্মহত্যার অনুমতি চাইলেন সরকারের কাছে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশে।

জানা গিয়েছে, ৩৯ বছর বয়সী প্রদীপ শর্মা নামের জনৈক এক কৃষক ‘পিএম কৃষক সম্মান নিধি যোজনা’-র টাকা ফিরিয়ে দিলেন। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে তিনি চিঠি লিখে জানান যে, তাঁর কাঁধে এতই ঋণের বোঝা এসে গিয়েছে যে তিনি আর বেঁচে থাকতে চান না। তাই পিএম যোজনার এই টাকা তিনি ফিরিয়ে দিচ্ছেন। তিনি লিখেছেন, তাঁর কাঁধে ৩৫ লক্ষ টাকার ঋণের বোঝা রয়েছে। আর এই ঋণ তাঁর পক্ষে শোধ করা কোনওভাবেই সম্ভব না। এমনকি তিনি নিজের পরিবারের মুখে একবেলার খাবারও তুলে দিতে পারছেন না। তাই তিনি আত্মহত্যার অনুমতি চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে চিঠি লিখতে বাধ্য হয়েছেন। যোগীর আগে তিনি জেলা শাসককেও এর আগে একটি চিঠি লিখেছিলেন বলে জানিয়েছেন প্রদীপ। শস্যের বিপুল পরিমাণে ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার পরে সাহায্যের আর্জি জানিয়ে সরকারের কাছে একটি চিঠিও লিখিলেন কিন্তু তখন কোনও উত্তর পাওয়া যায়নি।

 

এরপর তিনি দিল্লিতে গিয়ে কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী রাধামোহন সিংহের সঙ্গেও দেখা করেছিলেন, কিন্তু তখনও কার্যত খালি হাতে ফিরে আসেন যোগী রাজ্যের এই কৃষক। তিনি জানান, কৃষিঋণ শোধ করতে না পারায় তাঁর কাকা সেইসময়ে আত্মহত্যা করেন। এখন তাঁরও একই অবস্থা হয়েছে। তাই বাধ্য হয়ে তিনিও আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে বাধ্য হয়েছেন। কেন্দ্রীয় সরকারের এই প্রকল্পের দু’হাজার টাকা তাঁর কোনও কাজেই আসবে না। তাই সেই টাকা সমেত আত্মহত্যার অনুমতি চেয়েছেন। ঋণের বোঝা সহ্য করতে না পেরে কৃষকদের আত্মহত্যার ঘটনা কোনও নতুন কিছু নয়। এই নিয়ে একাধিকবার বিরোধীদের তোপের মুখে পড়তে হয়েছে মোদী সরকারকে। ফলে নির্বাচনের আগে মোদী সরকার হয়তো চাইবে না যে এই কৃষক আত্মহত্যা করুক। তাই তাঁকে আত্মহত্যা করার হাত থেকে আটকানোর জন্য কেন্দ্র বা যোগী সরকার কী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে চলেছে সে বিষয়ে তাকিয়ে রয়েছে সকলে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here