national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: মারণ চিনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি গায়িকা কনিকা কাপুর। গত ১৫ মার্চ লন্ডন থেকে এদেশে ফেরেন গায়িকা। কিন্তু পরবর্তী সময় অসুস্থ হলে নিজের ট্রাভেল হিস্ট্রি লুকিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। শুধু তাই নয়, লখনউতে ফিরে নিজের বন্ধুবান্ধবদের জন্য এক পাঁচতারা হোটেলে একটি পার্টি দেন কণিকা। সেই পার্টিতে ছিলেন বসুন্ধরা রাজে সহ তাঁর ছেলে এবং উত্তরপ্রদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রীও! এখন তিনি নিজেকে ‘সেল্ফ কোয়ারেন্টিন’ করে নিয়েছেন।

জানা গিয়েছে, কণিকার দেওয়া এই পার্টিতে অন্তত ১০০ জন গণ্যমান্য লোক এসেছিলেন। তাঁদের মধ্যে ছিলেন বসুন্ধরা রাজের ছেলে দুষ্মন্ত সিংও। একইসঙ্গে ছিলেন উত্তরপ্রদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জয়প্রতাপ সিং। কনিকার কোভিড-১৯ পজিটিভ আসার খবর শুনেই তিনি ‘সেল্ফ কোয়ারেন্টিন’-এ চলে গিয়েছেন। এই বিষয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, ওটা একটা পারিবারিক পার্টি ছিল। সেকারণেই সেখানে তিনি গিয়েছিলেন। আজ সকালেই তিনি কনিকার কথা জানতে পারেন। তারপরেই তিনি ‘সেল্ফ কোয়ারেন্টিন’-এ চলে গিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

শুধু রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রীই নন, ‘সেল্ফ কোয়ারেন্টিন’-এ চলে গিয়েছেন রাজস্থানের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে, তাঁর ছেলেও। আরও জানা গিয়েছে, সংসদে দুষ্মন্ত সিং-এর পাশেই বসেছিলেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন! এই খবরের পর তিনিও ‘সেল্ফ আইসোলেশনে’ গিয়েছেন বলে খবর।

অন্যদিকে, বলিউড গায়িকার বাবা রাজীব কুমারের দাবি, তাঁর মেয়ে বিদেশ থেকে লখনউ এসে অন্তত ৪০০ পরিবারের সঙ্গে দেখা করেছেন এবং তিনটি পার্টিতে যোগ দেন! মেয়ের খবরে তাঁরাও নিজেদের পরীক্ষা করিয়েছেন এবং ‘সেল্ফ কোয়ারেন্টিন’-এ চলে গিয়েছেন। তবে বাবার বক্তব্য একেবারেই মানছেন না কনিকা। গায়িকার দাবি, তিনি মোটেই তিনটি পার্টিতে যাননি। অল্প সংখ্যক লোকের সঙ্গেই ছিলেন। যাতে অন্য কারও সংক্রমণ না হয় তার জন্য গ্লাভসও পড়েছিলেন।

উল্লেখ্য, সানি লিওনি অভিনীত রাগিনী এমএমএস-২ ছবিতে ‘বেবি ডল’ গান গেয়ে রাতারাতি খ্যাতি লাভ করেন এই গায়িকা। তিনি এখন উত্তরপ্রদেশের কিং জর্জ মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here